| রাত ১০:৪৪ - বুধবার - ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১১ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ময়মনসিংহে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলাচল করছে ট্রেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  সরকার ঘোষিত লকডাউন তুলে নেয়ার চার দিনের মাথায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে আরও ১১ জোড়া যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল করছে। এর মাঝে ময়মনসিংহ রুটে ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে তিস্তা এক্সপ্রেস এবং দেওয়ানগঞ্জ বাজার-ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটে ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস রয়েছে।

 

ময়মনসিংহে বুধবার (জুন – ৩) থেকে শুরু হয়েছে ট্রেন চলাচল। বেলা এগারটায় ঢাকা থেকে তিস্তা এক্সপ্রেস ময়মনসিংহ স্টেশনের এসে পৌছায়। ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ ভায়া ময়মনসিংহ রুটে ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস এবং তিস্তা এক্সপ্রেস এই ২ জোড়া ট্রেন চলাচল করেছে।

 

ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে নির্ধারিত সময়ে ছেড়েছে। ঢাকা বিমানবন্দর এবং জয়দেবপুর স্টেশনে যাত্রাবিরতি বন্ধ ছিল। যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেন ভ্রমন নিশ্চিত করনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা গেছে ময়মনসিংহ রেল কর্তৃপক্ষকে।

 

স্টেশন সুপার জহুরুল ইসলাম জানান, ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস সকাল ৯টা ১০ মিনিটে এবং তিস্তা এক্সপ্রেস বিকাল ৫টা ১০ মিনিটে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকা অভিমুখে এবং দেওয়ানগঞ্জ অভিমুখে সকাল ১০টা ২৩ মিনিটে তিস্তা এক্সপ্রেস এবং রাত ৯ টা ৩০ মিনিটে ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে যাবে।

 

আরও পড়ুন – ময়মনসিংহে করোনা ভীতিতে টেস্ট নেগেটিভের পরও লাশ গ্রহণে অস্বীকৃতি পিতার

 

কাউন্টারের পরিবর্তে সকল টিকিট অনলাইনে বিক্রী করা হবে তবে কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী মোট আসনের অর্ধেক টিকিট বিক্রী করা হবে।

 

তিনি আরও জানান, কোনপ্রকার আসনবিহীন বা স্ট্যান্ডিং টিকিট বিক্রী করা হবেনা। তিস্তা এক্সপ্রেসে ১শ ৫৩টি এবং ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেসে ৭৭টি আসন বরাদ্দ রয়েছে ময়মনসিংহ স্টেশনের যাত্রীদের জন্য।

 

 

এখন এর অর্ধেক বিক্রী হবে যা অনেক অপ্রতুল। তবে স্টেশনে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও জীবাণুনাশক ব্যবহারে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। প্ল্যাটফর্মে যাত্রীদেরকে মাইকিং করে সচেতন করা হচ্ছে এবং টিকিট ছাড়া কেউকে স্টেশনে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

 

স্টেশন কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও তৎপর ভূমিকায় দেখা গেছে।

 

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবি) ময়মনসিংহ স্টেশনের অফিসার ইনচার্জ মেহেদি হাসান জানান, স্টেশনে টিকিটবিহীন কোন যাত্রীকে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি এবং কোন যাত্রী টিকিট ব্যাতীত ট্রেনে ভ্রমন করতে না পারে সেজন্য নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

আরও পড়ুন – ময়মনসিংহে বৃদ্ধের আত্মহত্যা, স্ত্রী-সন্তান গ্রেফতার 

 

এসময় রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) বাহিনীর সদস্যরাও যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

 

এর আগে সরকার ঘোষিত লকডাউন তুলে নেয়ার চার দিনের মাথায় বুধবার নতুন করে আরও ১১ জোড়া ট্রেন পুনরায় চালু করা হলো।

 

 

নতুন করে যুক্ত হওয়া ট্রেনগুলো হলো- ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার–ঢাকা রুটে তিস্তা এক্সপ্রেস, বেনাপোল-ঢাকা-বেনাপোল রুটে বেনাপোল এক্সপ্রেস, চিলাহাটি-ঢাকা-চিলাহাটি রুটে নীলসাগর এক্সপ্রেস, খুলনা–চিলাহাটি রুটে রূপসা এক্সপ্রেস, খুলনা-রাজশাহী–খুলনা রুটে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, রাজশাহী-গোয়ালন্দঘাট–রাজশাহী রুটে মধুমতি এক্সপ্রেস, চাঁদপুর-চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে মেঘনা এক্সপ্রেস, ঢাকা–কিশোরগঞ্জ–ঢাকা রুটে কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস, নোয়াখালী-ঢাকা–নোয়াখালী রুটে উপকূল এক্সপ্রেস, দেওয়ানগঞ্জ বাজার-ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার রুটে ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস এবং কুড়িগ্রাম-ঢাকা-কুড়িগ্রাম রুটে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস।

 

বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক শামসুজ্জামান বলেন, যাত্রী সাধারণকে আবশ্যই মাস্ক পরিহিত অবস্থায় স্টেশন এলাকায় বা ট্রেনে প্রবেশ করতে হবে। ট্রেনের অভ্যন্তরে যাত্রীদের নির্দিষ্ট আসনে অবস্থান করতে হবে এবং ট্রেনে আরোহণ এবং অবতরণের জন্য নির্দিষ্ট দরজা ব্যবহার করতে হবে।

 

 

বর্তমান স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার লক্ষ্যে ট্রেনে খাবার সরবরাহ বন্ধ থাকবে এবং যাত্রার তারিখসহ ৫ দিন আগে হতে টিকিট কেনা যাবে বলে জানান তিনি।

 

রেলওয়ের মহাপরিচালক আরও বলেন, যাত্রীদের প্রয়োজনীয় খাদ্য ও পানীয় সাথে নিতে হবে। তাপমাত্রা পরিমাপের সুবিধার্থে যাত্রীদের ট্রেন ছাড়ার কমপক্ষে এক ঘণ্টা আগে স্টেশনে পৌঁছাতে হবে।

 

কোনো অবস্থাতেই টিকিট ছাড়া প্লাটফরমে প্রবেশ করা যাবে না। দর্শনার্থী বা প্লাটফরম টিকিট বিক্রয় বন্ধ থাকবে।

আরও পড়ুন- মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় ময়মনসিংহে নতুন করে যাদের নাম এলো 

 

ছবিঃ হাসনাতুল ইসলাম মিল্লাত । লোক লোকান্তর

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:৩৩ অপরাহ্ণ | জুন ০৪, ২০২০