| সকাল ৮:২৮ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

মঙ্গলবার ময়মনসিংহে চিকিৎসকসহ করোনায় আক্রান্ত ২১ জন, বিভাগে আরো ১৩ জন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার বিভাগের চার জেলায় ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মাঝে ময়মনসিংহে ২১ জন আর ময়মনসিংহ বিভাগে আরও ১২ জন এবং টাঙ্গাইলে ১ জনের জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস পজেটিভ পাওয়া গেছে।

 

এদের মধ্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৫ চিকিৎসক, নার্স, আয়া ও পরিচ্ছন্নকর্মী সহ ১৪জন আক্রান্ত হয়েছেন। তারা হলেন, ডাঃ মিরুফা তাসনীম, ডাঃ মাহবুব হোসাইন, ডাঃ কিসতিয়া বিনতে কাসেম, ডাঃ মুশফিকা সুলতানা, ডাঃ জারজীনা নওসীন।

 

অন্যান্যরা হলেন, মরিয়ম খাতুন, তন্দ্রা দং, মনি, রুবেল, মনিরুজ্জামান, নাসরিন পারভিন, দেলোয়ার হোসেন, মেহেরুন্নেছা ও বিলকিস বেগম।

 

এছাড়া চরপাড়া ১ জন ডাঃ সুভন রহমান, মুক্তাগাছা ২ জন ইউএইচসির আশরাফুল ইসলাম ও ডাঃ গোলাম মোস্তফা, হালুয়াঘাট ১ জন ইউএইচসির ডাঃ খায়রুল ইসলাম জুয়েল , ফুলবাড়িয়া ও ফুলপুর ১ জন করে আল আমিন ও রফিকুল ইসলাম এবং ত্রিশালে ১ জন জমসেদ আলীর করোনা ভাইরাস পজেটিভ পাওয়া গেছে।

 

পাশাপাশি বিভাগের অন্য জেলা নেত্রকোনার পূর্বধলায় ২ জন ডাঃ দ্রুব সাহা রায়, ডাঃ আজহারুল ইসলাম, ও মোহনগঞ্জে ২ জনসহ জবা রানী ও রিপন দাস। এছাড়া জামালপুরে ৭ জন, শেরপুরে ১ জন এবং টাঙ্গাইলে ১ জন টাঙ্গাইলের নাসির উদ্দিনের করোনা শনাক্ত হয়।

 

এছাড়া প্রথমবারের মত ফুলবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট মিজানুর রহমান মিজান নামে একজন আক্রান্ত হয়েছেন।

 

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের অধ্য প্রফেসর ডাঃ চিত্ত রঞ্জন দেবনাথ এ তথ্য জানিয়েছেন। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত অন্তঃসত্ত্বা এক নারী তথ্য গোপন করে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন থাকায় তার মাধ্যমে ছড়িয়েছে বলে সিভিল সার্জন দাবি করেছেন।

 

ফুলবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত করোনায় আক্রান্ত মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট মিজানুর রহমান মিজানের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলায় বলে জানা গেছে। তিনি হাসপাতলের পুরাতন ভবনের ডরমেটরিতে বসবাস করতেন এবং হাসপাতালের জরুরী বিভাগে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

 

ফুলবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ছিদ্দিক জানান, করোনায় আক্রান্ত মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট মিজানুর রহমান হাসপাতালের পুরাতন ভবনের ডরমেটরিতে তার সহকর্মী মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট মামুনকে সাথে নিয়ে বাস করতেন। মামুনেরও পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া ডরমেটরি এলাকায় লাল পতাকা টানানো হয়েছে।

 

এদিকে ফুলবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে কর্মরত মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট করোনায় আকান্ত হওয়ায় ফুলবাড়িয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আশাপাশ এলাকাসহ ফুলবাড়িয়া এলাকায় আতংক দেখা দিয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:২১ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২১, ২০২০