| বিকাল ৩:০৫ - শনিবার - ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ৩রা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

সাকিবের অলরাউন্ডার পারফরমেন্সে হায়দরাবাদের আরেকটি জয়

লোক লোকান্তরঃ  সাকিব আল হাসান, রশিদ খান, সন্দীপ সিংদের বোলিং নৈপূণ্যে অসাধারণ এক জয় পেল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ১৩২ রানের ছোট পুঁজি নিয়েও ১৩ রানের জয় পেল দলটি। এই জয়ে ৭ খেলায় ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তিন থেকে দুইয়ে উঠে এলো হায়দরাবাদ।

 

ঘরের মাঠে আগে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ১৩২ রান সংগ্রহ করে হায়দরাবাদ। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সাকিব-রশিদদের ঘুর্ণি বলে বিভ্রান্ত হয়ে ১১৯ রানে অলআউট হয়ে যায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

 

পাঞ্জাবের শুরুটা অবশ্য ভালোই ছিল। উদ্বোধনীতে ৫৫ রান তুলে নেয়া দলটি এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। সময়ের ব্যবধানে উইকেট পড়ে গেলে ম্যাচটি বের করা পাঞ্চাবের ব্যাটসম্যানদের জন্য কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে যায়।

 

শেষ ওভারে জয়ের জন্য পাঞ্জাবের প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। আর হায়দরাবাদের প্রয়োজন ছিল মাত্র ১ উইকেট। দু’দলই জয়ের স্বপ্নে ভিভোর ছিল। হায়দরাবাদের বোলার বাসিল থাম্পি প্রথম বলে অতিরিক্ত এক রান দিলেও দ্বিতীয় বলে রাজপটের উইকেট তুলে নিলে জয়ের আনন্দে আত্মহারা হয়ে উল্লাসে মেতে উঠেন সাকিব-রশিদরা।

 

এর আগে বৃহস্পতিবার হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে টসে হের আগে ব্যাটিং করে স্বাগতিকরা। নিজেদের ঘরের মাঠে খেলতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় হায়দরাবাদ।

 

স্কোর বোর্ডে ২৭ রান জমা করতেই ফেরেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন, শেখর ধাওয়ান ও ঋদ্ধিমান সাহ। চতুর্থ উইকেটে মনস পান্ডিয়ার সঙ্গে ৫২ রানের জুটি গড়ে দলকে খেলায় ফেরান সাকিব।

 

২৯ বলে তিন বাউন্ডারির সাহায্যে ২৮ রান করে সাজঘরে ফেরেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। এরপর ইউসুফ পাঠানের সঙ্গে পঞ্চম উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়েন পান্ডিয়া। মূলত তার একার কারণে শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৩২ রান তুলতে সমর্থ হয় হায়দরাবাদ।

 

ইনিংস শেষ হওয়ার ঠিক ২ বল আগে সাজঘরে ফেরেন পান্ডিয়া। তার আগে ৩ বাউন্ডারি এবং এক ছক্কায় ৫৪ রান করে ফেরন মনস। এছাড়া ১৯ বলে ২১ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন ইউসুফ পাঠান।

সর্বশেষ আপডেটঃ ২:৩৫ পূর্বাহ্ণ | এপ্রিল ২৭, ২০১৮