| সকাল ১০:৩৪ - শনিবার - ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১০ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

বন্ধুদের নিয়ে মেয়েকে ধর্ষণ করল বাবা

লোক লোকান্তরঃ  ভারতে আবার গণধর্ষণ। এ বার ধর্ষক বাবা। প্রথমে মেয়েকে বন্ধুদের হাতে ‘উপহার’ হিসেবে তুলে দেয় বাবা। বন্ধুরা একে একে ৩৫ বছরের ওই নারীকে গণধর্ষণের পর বাবাও সেই দলে যোগ দেয়। বাবারও লালসার শিকার হয় মেয়ে।

 

উত্তর প্রদেশের লক্ষ্মৌ থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দূরে সীতাপুর জেলায় ঘটেছে এই ঘটনা। তিনজনের মধ্যে একজন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 

পুলিশ জানিয়েছে, ১৫ এপ্রিল কামলাপুর এলাকার একটি মেলায় মেয়েকে নিয়ে গিয়েছিলেন মূল অভিযুক্ত। তার বয়স ষাটের দোরগোড়ায়। মেলাতেই বন্ধু মান সিং-কে ডেকে আনেন তিনি। এরপর তারা দুজনে ওই নারীকে বাইকে চড়িয়ে নিয়ে যায় আর এক বন্ধু মিরাজের বাড়িতে।

 

সেখানে গিয়েই বন্ধুদের হাতে মেয়েকে তুলে দেয় বাবা। বন্ধুরা ও অভিযুক্ত বাবা নিজে মেয়েকে গণধর্ষণের পর মিরাজের বাড়িতেই মেয়েটিকে আটকে রেখেছিল। ১৮ ঘণ্টা পর কোনওক্রমে সোমবার বিকালে সেখান থেকে পালান মেয়েটি। বাড়ি ফিরে মাকে সে সব কথা জানালে ওই দিনই তারা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন। মঙ্গলবারই মিরাজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

 

তবে নির্যাতিতার বাবা ও তার আর এক বন্ধু মান সিং এখনও পলাতক। পুলিশ জানিয়েছে, বছর চল্লিশের মিরাজ ভুয়া ডাক্তারি করত। অপরাধের দিন তার বাড়িতে পরিবারের কেউ ছিল না।

 

পুলিশ জানিয়েছে, ১৬ বছর আগে মেয়েটির বিয়ে হলেও স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না-হওয়ায় বিয়ের দুই বছরের মধ্যেই বাপের বাড়িতে ফিরে এসেছিলেন তিনি। ২০১৭ সালেও একবার তার ওপর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল তার বাবার বিরুদ্ধে। মেয়েটির বাবাকে তখন গ্রেপ্তারও করা হয়। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতেই সে জামিনে মুক্তি পায়। এরপর থেকে ১৪ বছরের ছেলেকে নিয়ে আলাদাই থাকতেন ওই নারী।

 

সূত্র: এই সময়

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:০৩ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৯, ২০১৮