| সন্ধ্যা ৬:১১ - বৃহস্পতিবার - ১১ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ২৮শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ১লা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

জামালপুর শহরের ভারী বর্ষনে অধিকাংশ এলাকায় জলাবদ্ধতা

জামালপুর প্রতিনিধি:   ভারী বর্ষনে জামালপুর শহরের অধিকাংশ এলাকায় তীব্র জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে ডুবে গেছে অধিকাংশ রাস্তা। টানা বর্ষনে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন।

 

জানা গেছে, গত ৩ দিনের টানা বর্ষনে জামালপুর শহরের কাচারীপাড়া, সর্দারপাড়া, ফকিরপাড়া, বানাকুড়া, মিয়াপাড়া, বোসপাড়া, স্টেশন রোড, নিউ কলেজ রোড, শফির মিয়ার বাজার, বন্দেরপাড়াসহ বিভিন্ন এলাকার রাস্তা হাটু পানির নিচে তলিয়ে গেছে। পৌরসভার ড্রেনগুলো দীর্ঘদিন ধরে পরিস্কার না করায় পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ হয়েছে। পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় অনেক বাসা-বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন পৌরবাসী।

 

পৌরবাসীর অভিযোগ, ড্রেনগুলো সংস্কারে বার বার বলার পরেও পৌর কর্তৃপক্ষ উদাসীন ভূমিকা পালন করে। জলাবদ্ধতায় পৌরবাসীর দুর্ভোগের পাশাপাশি কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মান করা রাস্তাগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
শহরের কাচারীপাড়া এলাকার বাসিন্দা লুৎফর রহমান জানান, তাদের বাসার সামনের ড্রেনটি সংস্কারের জন্য পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরকে কয়েকবার বলা হয়েছে। কিন্তু কাজ হয়নি। ড্রেনটি সংস্কার না করায় তাদের বাসাসহ আশপাশের বাসাবাড়ি জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

 

শহরের সর্দারপাড়া এলাকার বাসিন্দা কাফি পারভেজ জানান, ড্রেনগুলো সংস্কার না করায় তা ভরে গেছে। পানি নিস্কাশনের সু-ব্যবস্থা না থাকায় বাসার সামনের রাস্তা হাটু পানিতে তলিয়ে গেছে। পৌর কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরেও পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

 

শহরের বন্দেরপাড়া এলাকার বাসিন্দা অধ্যাপক মোঃ সুরুজ্জামান জানান, পানি নিস্কাশনের সু-ব্যবস্থা না থাকায় তার এলাকায় তীব্র জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। জলাবদ্ধতার কারনে ওই এলাকার বাসিন্দারা তাদের একমাত্র মসজিদে নামাজ পড়তে পারছেন না।
জামালপুর পৌরসভার মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম মনি জানান, জলাবদ্ধতা নিরসনে পৌর কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে। বর্ষা মওসুম শুরুর আগেই পৌরবাসী এর সুফল ভোগ করতে পারবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:১৪ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২২, ২০১৭