| রাত ৮:৫৯ - রবিবার - ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ৯ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

ঢাকা আশুলিয়া থেকে অপহৃত শিশু হৃদয় গৌরীপুরে উদ্ধার ঃ আটক-৬

সাজ্জাতুল ইসলাম সাজ্জাত, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) থেকে, ২৮ এপ্রিল ২০১৬, বৃহস্পতিবার
ঢাকার আশুলিয়া এলাকা থেকে অপহৃত হৃদয় (১৪) নামের এক শিশুকে গতকাল বৃহষ্পতিবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানা পুলিশ উদ্ধার করেছে। এর আগে বুধবার রাতে অপহরণের সাথে জড়িত সন্দেহে পুলিশ এক মহিলা সহ পাচঁ যুবককে আটক করে। আটককৃতরা হলো রিপন, জুয়েল, রাজন, শান্ত, হৃদয় ও অপহরণে জড়িত মুল হোতা বোকাইনগর ইউনিয়নের অষ্টগড় গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে সুমন মিয়ার মা জোবেদা খাতুন।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঝালকাটি জেলার বাহিরদিয়া গ্রামের মৃত নান্টু মলিৱকের ছেলে ও তার স্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে আশুলিয়া এলাকায় বসবাস করছেন। অভাবের তাড়নায় তার ছেলে হৃদয় রাজমেস্ত্রী জোগালিয়া (সহকারী) হিসেবে শ্রমিকের কাজ করে। গত সোমবার (২৫ এপ্রিল) হঠাৎ ঢাকার আশুলিয়া বেরিবাধঁ এলাকা থেকে সে নিখোজঁ হয়। এ ঘটনায় হৃদয়ের মা হালিমা খাতুন বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) আশুলিয়া থানায় ১৯০৪ নং একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। হৃদয় নিখোজেঁর পর থেকে তার মায়ের মোবাইল নাম্বারে ছেলে মৃক্তিপণের জন্য ভিন্ন ভিন্ন মোবাইল নাম্বারে দুই লাখ টাকা থেকে শুর্ব করে বিভিন্ন অংকের টাকা দাবী করে। পরে আশুলিয়া থানা পুলিশ ওই মোবাইল নাম্বারগুলোর কললিষ্ট সংগ্রহ করে। বৃহষ্পতিবার রাতে আশুলিয়া থানার এসআই মোঃ শহিদুল ইসলাম মোলৱা গৌরীপুর থানা পুলিশের সহযোগীতায় মোবাইল ট্রেকিং এর মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে পৌর শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাচঁজন যুবককে আটক করে। তাদের স্বীকারোক্তিতে অপহরণে জড়িত মুল হোতা বোকাইনগর ইউনিয়নের অষ্টগড় গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে সুমন মিয়ার বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালায়। পরে তাকে না পেয়ে তার মা জোবেদা খাতুনকে পুলিশ আটক করে। সুমন তার মা আটকের খবর শুনে অপহৃত হৃদয়কে মোটরসাইকেল যোগে গৌরীপুর থানার সামনে রেখে চলে যায়। পরে হৃদয়ের মায়ের মোবাইলে ফোন করে ছেলেকে ছেড়ে দিয়েছে খবরটি নিশ্চিত করে। উদ্ধার হওয়া হৃদয় জানায়, আশুলিয়া থেকে সুমন তাকে গৌরীপুরে নিয়ে এসে গ্রামের একটি আবদ্ধ ঘরে বেধেঁ রাখে। পরে তার সাথে যুক্ত হয় আরো চারজন। মুক্তিপণ না দেয়ায় হৃদয়কে তারা শারীরিক লাঞ্চিত করে। আশুলিয়া থানার এসআই মোঃ শহীদুল ইসলাম মোলৱা জানান, এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় অপহরণের একটি মামলা দায়েরের প্রস’তি চলছে। আসামীসহ উদ্ধার হওয়া ভিকটিমকে আশুলিয়া থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। গৌরীপুর থানার ওসি মোঃ আখতার মোর্শেদ জানান, সুমনের মা জোবেদাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর অপহৃত হৃদয়কে কে বা কারা থানার সামনে রেখে যায়। আসামী সহ তাকে আশুলিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। ####

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:৩৬ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২৮, ২০১৬