| বিকাল ৩:০২ - সোমবার - ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

শেরপুরে ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী দিতে ব্যর্থতার অভিযোগে পাকুরিয়া ও রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত

শেরপুর প্রতিনিধি:১৫ এপ্রিল ২০১৬, শুক্রবার,

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী দিতে ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগে শেরপুরের সদর উপজেলার পাকুরিয়া ও রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটি বিলুপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। গত ১৩ এপ্রিল বুধবার সদর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. হযরত আলী স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। পাকুরিয়া ও রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটির আহবায়ক ও যুগ্ম-আহবায়ককে লিখা চিঠি সূত্রে জানা গেছে, পাকুরিয়া ও রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটি দলীয় কর্মকান্ডে চরম অবহেলা করায় ইউনিয়ন বিএনপি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ফলে ইউপি নির্বাাচনে তাঁরা প্রার্থী দিতে ব্যর্থ হন। ওই দুটি ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক ও যুগ্ম-আহবায়ক নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে অন্যায়ভাবে উপজেলা বিএনপি এবং উর্ধতন নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও সংগঠন বিরোধী কথা প্রচার করে দলের ভাবমুর্তি ৰুণ্ন করেছেন। আহবায়ক ও যুগ্ম-আহবায়করা বিভিন্ন ওয়ার্ডের নির্বাচিত ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছেন। যা বিভিন্ন ওয়ার্ডের নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা উপজেলা ও জেলা বিএনপির আহবায়কের নিকট লিখিত ও মৌখিকভাবে অবহিত করেছেন। এমন অবস’ার প্রেৰাপটে জেলা বিএনপির আহবায়ক মো. মাহমুদুল হকের সঙ্গে আলোচনা সাপেৰে সদর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. হযরত আলী পাকুরিয়া ও রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটি বিলুপ্তি ঘোষণা করেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে হযরত আলীর অভিযোগ অস্বীকার করে পাকুরিয়া ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক হালিম সরকার আজ শুক্রবার বিকেলে বলেন, তৃণমূল পর্যায় থেকে প্রার্থী ঠিক করে উপজেলা বিএনপির নিকট দেওয়া হলেও সেটি গ্রহণ করা হয়নি। ফলে তাঁর ইউনিয়ন থেকে কেউ প্রার্থী হতে পারেননি। এছাড়া দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী উপজেলা বিএনপির আহবায়কের ইউনিয়ন কমিটি বিলুপ্ত করার কোন এখতিয়ার নেই বলেও তিনি দাবি করেন। অপরদিকে রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক আক্কাছ আলী অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তৃণমূল থেকে একজনকে প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করে উপজেলা কমিটির আহবায়কের নিকট দেওয়া হলেও তিনি (হযরত আলী) মনোনয়নপত্রে স্বাৰর করেননি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩৮ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৫, ২০১৬