| বিকাল ৩:৫৮ - সোমবার - ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১১ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল পেছানোর কোনো সম্ভাবনা নেই–ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয়ের স্থান পরিদর্শনকালে সৈয়দ আশরাফ

 

স্টাফ রিপোর্টার, ১১ মার্চ ২০১৬, শুক্রবার,
জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল পেছানোর কোনো সম্ভাবনা নেই। আজ শুক্রবার (১১ মার্চ) বিকেল পৌনে ৪টায় সদ্য ঘোষিত ময়মনসিংহ বিভাগীয় কার্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষে উপযুক্ত স্থান নির্বাচনের জন্য সদর উপজেলার চর ঈশ্বরদী এলাকায় সম্ভাব্য স্থান পরিদর্শনকালে তিনি একথা বলেন।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, কাউন্সিল যদি পেছাতে হয় ওয়ার্কিং কমিটির সভার সিদ্ধান্ত নিয়ে পেছাতে হবে। এককভাবে কারো পক্ষে কাউন্সিল পেছানো সম্ভব নয়।
মন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের ধাপ হিসেবে নতুন বিভাগের ভবন প্রতিষ্ঠার জায়গা দেখতে এসেছি। ময়মনসিংহের উন্নয়নের জন্য যা যা করার দরকার সব করা হবে।
দেশের ৮ম বিভাগ ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার ও অন্যান্য বিভাগীয় কার্যালয়ের উপযুক্ত স্থান নির্বাচনের জন্য ময়মনসিংহে সরজমিনে জমি পরিদর্শন করেন ৪ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীসহ ৮ সচিব এবং প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্মকর্তাদের বিশাল একটি টীম। স’ান নির্বাচনের পর জমি অধিগ্রহন সম্পন্ন করে দ্র্বত অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে।
ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মুস্তাকীম বিলৱাহ ফার্বকী জানান, রাজধানী ঢাকা থেকে হ্যালিকপ্টার যোগে শুক্রবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে ময়মনসিংহে এসে পৌছেন তারা। এরপর শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপিসহ ৪ মন্ত্রী ও সচিববৃন্দ ব্রহ্মপূত্র নদের তীরে কাচারি ঘাটের বিপরীতে চর জেলখানা এবং শম্ভুগঞ্জের চায়না মোড়ে বিভাগীয় কমিশনার ও অন্যান্য বিভাগীয় কার্যালয়ের উপযুক্ত স’ান পরিদর্শন করেছেন।
পরিদর্শনকালে উপসি’ত ছিলেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ, ধর্মমন্ত্রী অধ্যৰ মতিউর রহমান, যুব ও ক্রীড়া উপ-মন্ত্রী আরিফ খান জয় এমপি, মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও ময়মনসিংহের সাবেক জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আলম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মূখ্যসচিব আবুল কালাম আজাদ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবুল নাসের চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাউল আলম, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মঈন উদ্দীন আব্দুলৱাহ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ সাজ্জাদুল হাসান, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার ও ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ জিলৱার রহমান,গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ হাফিজুর রহমন মুন্সী, স’াপত্য অধিদপ্তরের প্রধান স’পতি কাজী গোলাম নাসির, ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও জেলা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ইকরামূল হক টিটুসহ সংশিৱষ্ট বিভাগীয় উধর্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ও জেলা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ইকরামূল হক টিটু দ্র্বত বিভাগীয় পর্যায়ের সকল দপ্তর স’াপন করে এর কার্যক্রম শুরু করার জন্য সংশিৱষ্টদের প্রতি আহবান জানান। এইসাথে দ্র্বত ময়মনসিংহকে সিটি কর্পোরেশন, শিৰাবোর্ড, ময়মনসিংহে অর্থনৈতিক জোন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স’াপন, ময়মনসিংহে মেট্রোপলিটন পুলিশ, ইমিগ্রিশনসহ হালুয়াঘাটে পূর্ণাঙ্গ স’লবন্দর স’াপনসহ এ অঞ্চলের গণদাবীগুলো পূরণ করার জন্যে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানান।
বহুল প্রত্যাশিত ময়মনসিংহ বিভাগের গেজেট গত (১৩ অক্টোবর) প্রকাশিত হয়েছে। উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ জেলাকে বিভাগ প্রতিষ্ঠার লৰে দীর্ঘ ২৬ বছর আন্দোলনের প্রেৰিতে অবশেষে গত ১৪ সেপ্টেম্বর নিকারের বৈঠকে অনুমোদনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা বিভাগ ভেঙ্গে ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোনা এই ৪ জেলা নিয়ে ময়মনসিংহ বিভাগ ঘোষণা করেন। নবগঠিত বিভাগের প্রথম বিভাগীয় কমিশনার জি.এম সালেহ উদ্দিন যোগদান করেন গত বছরের ৩ ডিসেম্বর।
গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর পুলিশ বিভাগের দৰ অফিসার উপ-মহা পুলিশ পরিদর্শক (ডিআইজি) চৌধুরী আব্দুলৱাহ আল মামুনকে পুলিশের নবগঠিত ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে নিয়োগ দেয়া হলেও তিনি এখন পর্যন্ত কর্মস’লে যোগ দান করেননি। আগামী সপ্তাহে তিনি যোগদান করবেন বলে জানা গেছে। #

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৩৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ১১, ২০১৬