| রাত ২:০৫ - বৃহস্পতিবার - ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে যান চলাচলে শেখ কামাল ও শেখ জামাল সেতুর উদ্বোধন করবেন

 ঢাকা, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ (বাসস) : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল গণভবনে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে পটুয়াখালী-কুয়াকাটা সড়কে নবনির্মিত শেখ কামাল ও শেখ জামাল সেতু এবং সিলেট অঞ্চলে ১৬টি সেতু যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করবেন।
শেখ কামাল ও শেখ জামাল সেতুর নির্মাণ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। এরমধ্যে ৯শ’ মিটার দৈর্ঘের শেখ কামাল সেতু নির্মাণে ৬৫ কোটি টাকা এবং ৫শ’ মিটার দৈর্ঘের শেখ জামাল সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৪৩ কোটি টাকা। উল্লেখ্য এর আগে শেখ রাসেল সেতু উদ্বোধন হয়েছে।
সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।
এছাড়া ইস্টার্ণ বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় সিলেট-সুনামগঞ্জ ও সিলেট-জকিগঞ্জ মহাসড়কের ১৬টি সেতুর নির্মাণ করা হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে ১১টি এবং সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কে ৫টি সেতু। এ ১৬ সেতুর নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ২৬৮ কোটি টাকা।
নির্মিত এ সেতুগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে গোবিন্দগঞ্জ, জাতুয়া, বাউস, চেচাং, রাউলি, আহছানমারা, মনবেগ কাকুরা, কোনাগ্রাম, পরচক, সাতপরি, সাজাতপুর।
প্রধানমন্ত্রী ২০১২ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারী ‘পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কে শেখ কামাল সেতু, শেখ জামাল সেতু ও শেখ রাসেল সেতু নির্মাণ’ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। তিনি ২০১৫ সালের ২০ আগস্ট শেখ রাসেল সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করেন। শেখ কামাল সেতু ও শেখ জামাল সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হওয়ায় আগামীকাল এ দু’টি সেতু যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৩৭ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৬