| রাত ২:০৭ - বৃহস্পতিবার - ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

শেরপুরে ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীতে জনজীবন বিপর্যসত্ম : ১০ দিনে দুই বৃদ্ধের মৃত্যু

 

শেরপুর প্রতিনিধি:২৫ জানুয়ারি ২০১৬, সোমবার,
মাঘ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে অব্যাহত ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীতে শেরপুরের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। আজ ২৫ জানুয়ারী সোমবার সারাদিন সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। ঘন কুয়াশায় দূরপাল্লা ও শহরের অভ্যন্তরীণ রুটে যানবাহনগুলোকে হেড লাইট জ্বালিয়ে চলতে দেখা গেছে। শেরপুর সদর উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদে নৌ চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। গত ১০ দিনে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে দুই বৃদ্ধ মারা গেছেন।
শৈত্য প্রবাহের কারণে আজ শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় শ্রমজীবী ও ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিড়্গার্থী ও অফিস-আদালতে সাধারণ মানুষের উপসি’তি ছিল খুব কম। শহরের প্রধান বাণিজ্যিক কেন্দ্র নয়আনী বাজারসহ রঘুনাথ বাজার, মুন্সীবাজার, শহীদ বুলবুল সড়ক, খরমপুর এলাকায় অবসি’ত দোকানপাটে বেচাকেনা ছিল খুব কম। শহরে যানবাহন চলাচল কমে গেছে।
এদিকে তীব্র শীতের ফলে শিশু ও বয়স্কদের ঠান্ডাজনিত রোগের প্রকোপ বেড়েছে। শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) মো. মোবারক হোসেন বলেন, আজ সোমবার হাসপাতালের বহির্বিভাগে প্রায় একশত শিশুকে ঠান্ডাজনিত রোগের চিকিৎসা দেওয়া এবং অন্তমঃবিভাগে ২০ শিশুকে ভর্তি করা হয়েছে। গত ১০ দিনে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস’ায় দুই বৃদ্ধ মারা গেছেন বলে তিনি জানান।
অপরদিকে ঘন কুয়াশা ও শীতের তীব্রতা বাড়ায় আলু চাষীরা লেটব্রাইট রোগ নিয়ে দুঃশ্চিন্তায় আছেন। তবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, শেরপুরের উপ-পরিচালক মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, কুয়াশা অব্যাহত থাকলে আলু খেতে লেটব্রাইট রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিতে পারে। এ রোগ প্রতিরোধে মাঠ পর্যায়ে আলু চাষীদের জরম্নরি পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৩১ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ২৫, ২০১৬