| রাত ১২:৫১ - রবিবার - ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

গফরগাঁওয়ে মাকে মারধর করে বের করে দিয়ে ঘরে তালা দেয়ার অভিযোগ

গফরগাঁও প্রতিনিধি ঃ ৭ জানুয়ারি ২০১৬, বৃহস্পতিবার,

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ছোট ভাই প্রবাসী উছমানের টাকা দিয়ে জমি ক্রয় করে নিজের নামে লিখে নেন বড় ভাই লোকমান। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধ মাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে মায়ের বসত ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয় বড় ছেলে লোকমান। এছাড়াও লোকমানের বিরুদ্ধে ঘরে থাকা মায়ের নগদ টাকা, স্বর্নালংকার ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
এসব ঘটনার প্রতিকার চেয়ে বৃদ্ধ হালিমা খাতুন গফরগাঁও সার্কেলের সিনিয়র এএসপি বিল্লাল হোসেনের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাগলা থানাধীন সাকড়া পাড়া গ্রামের মৃত ইসলাম উদ্দিনের স্ত্রী হালিমা খাতুনের ছোট ছেলে প্রবাসী উছমানের কাছ থেকে বড় ভাই লোকমান বাসার জমি কেনার জন্য ৭লাখ টাকা নেয়। পরে ওই টাকা দিয়ে গাজীপুরের মাওনায় জমি ক্রয় করে লোকমান। জমি দুই ভাইয়ের নামে যৌথ দলিল করার কথা থাকলেও বড় ভাই লোকমান তার স্ত্রী দেলোয়ারা খাতুনের পরামর্শে লোকমান নিজের নামে দলিল করে নেন। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় লোকমান তার মা বৃদ্ধ হালিমা খাতুনকে মারধর করেন। এ অবস’ায় বাধ্য হয়ে উছমান বড় ভাই লোকমানের নিকট তার ৭লাখ টাকা ফেরত দিতে চাপ প্রয়োগ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে লোকমান তার মাকে আবারো মারধর করে মায়ের জমানো ৪২হাজার টাকা ও স্বর্নালংকার ছিনিয়ে নিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে বসত ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয়।
প্রতিকার চেয়ে হালিমা খাতুন পাগলা থানা পুলিশের দ্বারস’ হলে পুলিশ উল্টো তার মাকে শাসায়। এ অবস্থায় বাধ্য হয়ে বৃদ্ধ হালিমা খাতুন ছেলে লোকমান ও তার স্ত্রী দেলোয়ারা খাতুনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার গফরগাঁও সার্কেলের সিনিয়র এএসপি বিলস্নাল হোসেনের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এএসপি বিল্লাল হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়ে পাগলা থানার ওসিকে আইনগত ব্যবসা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।  পাগলা থানার ওসি চাঁন মিয়া বলেন, অভিযুক্তদের ধরতে ওই বাড়িতে একজন অফিসার পাঠানো হয়েছিল। কিন’ বিবাদীদেরকে পাওয়া যায়নি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৩৬ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০৭, ২০১৬