| রাত ১০:১২ - রবিবার - ৯ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ২রা জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

কটিয়াদীর আবু তাহের ইঁদুর ধরা ও মারার দক্ষ কারিগর


ছাইদুর রহমান নাঈম, কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) থেকে, ১ জানুয়ারি ২০১৬, শুক্রবার,
মানুষ স্বভাবগত ভাবেই বা কোন সুনির্দিষ্ট লক্ষ অর্জনের জন্য কোন কোন ক্ষেত্রে নিজের অজানেত্মই কোন একটি নির্দিষ্ট কাজকে বেছে নেয় অতি আপন করে, যা এক সময়ে হয়ে দাঁড়ায় দারুন এক নেশায়। ব্যাক্তি বিশেষে এ নেশা হয় ভিন্ন, ভিন্ন হয় তার কর্মের ধরনেও। ইদুর ধরা ও মারার তেমনি একটি নেশা সেই যুবক বয়স থেকে পেয়ে বসে কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার আচমিতা ইউনিয়নের বানিয়াগ্রাম গ্রামের চাষী পরিবারে বেড়ে উঠা যুবক আবু তাহের (৬৫) কে। সে নেশা শেষ বয়সে এসেও একটু কমেনি বরং আজও নিজ এলাকা ও উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন গ্রামের চাষীদের কাছে ইঁদুর ধরা ও মারার দক্ষ কারিগর হিসেবে পরিচিত এক মুখ- আবু তাহের মিয়া। ক্ষুদ্র চাষী পরিবারে বেড়ে উঠা আবু তাহের মিয়া পারিবারিক ভাবে বিভিন্ন পিছু টানের দরুন শিক্ষায় খুব বেশি এগুতে পারেননি, তিনি মাত্র দশম শ্রেনী পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। তাই কৃষক পরিবারের সন্তন হিসেবে পৈতৃক সূত্রে পাওয়া বাবার কৃষি জমি আর পেশা হিসেবে কৃষিতে যুক্ত হয়ে শুরু করেন তার জীবন জীবিকার সংগ্রাম। জমি চাষ, ধান পাঠসহ বিভিন্ন ফসলের বীজ বুনা ও সেই স্বপ্নে বিভোর হয়ে স্বপ্নের দিন গুনে এ পেশায় প্রত্যক্ষ ভাবে যুক্ত থেকে পার করেছেন জীবনের দীর্ঘ ৪০ বছর সময় এবং এলাকার অন্যান্য কৃষকদের কাছে তিনি একজন সফল ও আদর্শ কৃষক হিসেবে পরিচিতি পাওয়ার পাশাপাশি হয়ে উঠেছেন উপজেলার একজন মডেল কৃষক। বেশ অনেক বছর পূর্বে তিনি উপজেলা কৃষি অফিসের মাধ্যমে ইঁদুর ধরা, ইঁদুর মারা ও ইঁদুরের ড়্গতিকর দিকের বিষয়ে এক কর্মশালায় অংশ গ্রহনের মাধ্যমে জানতে পারেন ইঁদুরের ভয়াবহ ক্ষতি ও বংশবিসত্মারের ফলে মাঠের ফসল, বসতবাড়ী, রাস্তা, বাঁধ, গুদাম, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালতসহ সব খানে এ ইঁদুর মানুষের জন্য কি পরিমান ক্ষতি বয়ে আনে। সে থেকে তিনি ও তার গ্রামের বিভিন্ন কৃষকদের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধিসহ নিজের হাতে ইঁদুর ধরা ও মারার ফলে উক্ত এলাকার ফুল-ফসল, বাড়ী-ঘর সহ বিভিন্ন স্থাপনা পূর্বের তুলনায় বর্তমানের এ সময়ে ইঁদুরের ড়্গতির মাত্রা অনেক অনেক কমে এসছে। তার সেই কৃতিত্বের সীকৃতি সরূপ গত ১১/১০/২০১৫ইং তারিখে অতিরিক্ত পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ময়মনসিংহ অঞ্চল, ময়মনসিংহ হতে আঞ্চলিক পুরস্কার প্রদান করা হলে সেখানে তিনি ২য় স্থান অর্জনের পুরস্কার গ্রহন করেন। এ প্রতিনিধির সাথে আলাপ কালে আবু তাহের মিয়াকে ইঁদুর ধরার কার্যকর কৌশল কি কি তা জানতে চাইলে তিনি জানান- বিভিন্ন ফাঁদ, গর্তে মরিচের পানি ও ধোঁয়া, বাঁশের ফাঁদ, জিআই তারের ফাঁদ, কারেন্ট জালের ব্যবহার, শামুক থেরাপি, জিঙ্ক ফসফাইড বিষ প্রয়োগ ইত্যাদির মাধ্যমে।

এ ব্যাপারে বানিয়াগ্রাম বস্নকের উপ-সহকারী কৃষি অফিসার জনাব সংকর কুমার সরকারের সাথে কথা হলে তিনি জানান- আবু তাহের মিয়া একজন দড়্গ ও পরিশ্রমী কৃষক, কৃষি ও কৃষি কাজের কাজের প্রতি তার আগ্রহ প্রবল। তাছাড়া তিনি জাতীয় কৃষি প্রযুক্তি প্রকল্পের একজন সক্রিয় সদস্য।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:১৫ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ০১, ২০১৬