| দুপুর ১২:১২ - রবিবার - ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১লা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

গফরগাঁও ও ভালুকায় বিএনপিসহ ৪ মেয়র প্রার্থীর নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা ঃ ত্রিশালে ৬টি ককটেল বিস্ফোরণ ঃ আহত ৩

 

স্টাফ রিপোর্টার,  ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫, বুধবার,
নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ না থাকায় ময়মনসিংহের গফরগাঁও বিএনপি ও ভালুকায় বিএনপিসহ ৩জন মেয়র প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেছে। ভালুকায় ১টি কেন্দ্র স্থগিত ঘোষনা করা হয়েছে। এদিকে ত্রিশালে একটি কেন্দ্রে ৬টি ককটেল বিস্ফোরনের ঘটনা ঘটেছে।
গফরগাঁও পৌরসভার বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শাহ আবদুল্লাহ আল মামুন আজ বুধবার দুপুর ১২টা ২২ মিনিটি দিকে পৌরসভা নির্বাচন বর্জন ঘোষণা করেন । বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক সাংবাদিকদেরকে তিনি মোবাইলে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ না থাকায় সরে দাড়ানোর ঘোষনা দেন। গফরগাঁও পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ২জন প্রার্থী ছিলেন । এরা হলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত ইকবাল হোসেন সুমন ও অপর প্রার্থী বিএনপির শাহ আবদুল্লাহ আল মামুন ।
ময়মনসিংহের ভালুকা পৌরসভার বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাতেম আলী খান ও ২জন স্বতন্ত্র মেয়র প্রাথী নির্বাচনের অনিয়মের অভিযোগ এনে বুধবার দুপুরে নির্বাচন বর্জন করেছেন। হাতেম আলী খান বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন। ভালুকা পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ ভালুকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স’গিত করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১১ টায় ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সেখানকার ভোটগ্রহণ স’গিত করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও রির্টার্নিং অফিসার কামরুল আহসান তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ওই কেন্দ্রে মেয়র প্রার্থী মেজবাহ উদ্দীন কাইয়ুম ও ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী শামস উদ্দিন খানের সমর্থকরা ব্যালট পেপার ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। আর এ ঘটনার জের ধরে ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।
ত্রিশাল পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের দুখুমিয়া বিদ্যা নিকেতন ভোটকেন্দ্র থেকে প্রায় একশ’ গজ দূরে তিনটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে। তবে কে বা কারা এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ সময় ভোটকেন্দ্রের চেয়ার-টেবিলও ভাঙচুর করা হয়েছে। এই ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কালাম জানান, ‘এটি ককটেল নয়, পটকা ছিলো।’ এসময় ৩ জন আহত হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানায়। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জেলার বাকী ৬টি পৌরসভার নির্বাচন শানি-পূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। #

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:২৬ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ৩০, ২০১৫