| সকাল ১১:৫৭ - শনিবার - ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৩ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ত্রিশালে ভিজিএফের চাল কম দেয়ায় চেয়ারম্যান-মেম্বার গ্রুপের সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় আহত-৬

ত্রিশাল অফিস, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৫, সোমবার,
ময়মনসিংহের ত্রিশালে ঈদ উপলক্ষে দেওয়া গরীব-দুস্থদের জন্য ভিজিএফ এর চাল জনপ্রতি ১০ কেজির স’লে ৬ কেজি দেওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার খায়রুল ইসলাম প্রতিবাদ করায় তাকে প্রকাশ্যে মারধর ও পিটিয়ে বের করে দিলেন চেয়ারম্যান শামছুদ্দিন ও তার লোকজন। খবর পেয়ে ত্রিশাল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপসি’ত হয়ে পরিসি’তি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, ত্রিশাল উপজেলার মোড়্গপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ হাজার ৮শ গরীব-দুস’দেকে ঈদ উপলড়্গে  সোমবার দুপুরে ভিজিএফ এর চাল বিতরন চলছিল। কার্ডধারীদের জনপ্রতি ১০ কেজি চাল দেওয়ার বরাদ্ধ থাকলেও সেখানে ৬ কেজি করে চাল দেওয়ায় এর প্রতিবাদ করেন ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার খায়রুল ইসলাম। এ সময় চেয়ারম্যান ও তার লোকজন খাইরুল ইসলামের উপর ড়্গিপ্ত হয়ে মারধর করে পরিষদ থেকে বের করে দিলে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে।

খাইরুল ইসলাম বাড়ীতে যাওয়ার পর ১নং ওয়ার্ডের ভূইয়ার বাজারে চেয়ারম্যান গ্রুপের লোকজন মেম্বার গ্রম্নপের লোকজনের উপর পূনরায় হামলা চালায়। এ সময় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় মেম্বার গ্রম্নপের ৬ জন ও চেয়ারম্যান গ্রুপের ১জন আহত হয়। মেম্বার গ্রুপের আহতরা হলেন, খাইরুল ইসলাম ম্বোর (৫৫), সাখাওয়াত হোসেন (২২), সোহান (১৯), হায়দার আলী (৩০) গুরতর আহত অবস্থায় কবীর হোসেন (৪০) কে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চেয়ারম্যান গ্রুপে তার ভাই বিপুল মাস্টার আহত হয়। এ ঘটনার পর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিসি’তি নিয়ন্ত্রনে রাখতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন মোক্ষপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ ফারম্নক হোসেন ও আব্দুর রহিম।   ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার খায়রুল ইসলাম জানান, জনপ্রতি চাল ৬ কেজি দেওয়া শুরু করলে সাথে সাথেই আমি তার প্রতিবাদ করি। এতে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মারধর করে আহত করে পরিষদ কার্যালয় থেকে বের করে দেয়।

মোক্ষপুর ইউপি চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন চাল কম দেওয়ার কথা অস্বীকার করে উল্টো অভিযোগ এনে বলেন, খাইরুল মেম্বার আমার ছোট ভাইকে মারধর করেছে। ত্রিশাল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরম্নজ্জামান জানান, মোক্ষপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন একজন মেম্বারকে মারধর করেছে বলে আমি শুনেছি। পরিসি’তি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৫৯ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৫