| সকাল ৭:০৫ - সোমবার - ৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৯ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ঢাকায় গৃহকর্মী তাহমিনার হত্যাকারিদের গ্রেফতারের দাবিতে কিশোরগঞ্জে বিক্ষোভ মানববন্ধন

 

সিম্মী আহাম্মেদ, কিশোরগঞ্জ, | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫, বৃহস্পতিবার,
রাজধানীর মিরপুরে কিশোরগঞ্জের গৃহকর্মী তাহমিনার (১৪) হত্যাকারিদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবিতে এলাকাবাসী বিড়্গোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বৌলাই ছয়না গ্রাম থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার পথ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এতে নিহত তাহমিনার বাবা জয়নাল আবেদীন ও মা হালিমাসহ শতাধিক নারী-পুরম্নষ অংশ নেন। মানববন্ধন থেকে মামলাটি দ্রম্নত নিষ্পত্তির জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানানো হয়।
কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার বৌলাই ছয়না গ্রামের রিকশাচালক জয়নাল আবেদীনের মেয়ে তাহমিনা সাত মাস ধরে মিরপুরের মনিপুর হাইস্কুলের পাশে কিশোরগঞ্জের বিন্নাটি এলাকার অ্যাডভোকেট মো. মামুন ওরফে লিটনের ভাড়া বাসায় কাজ করত। গত ১ সেপ্টেম্বর সকালে মিরপুর থানার পুলিশ ওই বাসা থেকে তাহমিনার লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় প্রথমে পুলিশ একটি অপমৃত্যু মামলা নিলেও তাহমিনার বাবা এটিকে পাশবিক নির্যাতনশেষে হত্যাকা- বলে দাবি করেন। ফলে তাহমিনার লাশ গ্রামের বাড়িতে আনার পর সুষ্ঠু বিচারের দাবিেত ৩ সেপ্টেম্বর বিকালে লাশ নিয়ে এলাকাবাসী বিড়্গোভ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও করে। এ অবস’ায় পরদিন ৪ সেপ্টেম্বর মিরপুর থানা হত্যা মামলা নেয়। তাহমিনার বাবা জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে অ্যাডভোকেট লিটন ও তার স্ত্রী কামরম্নন্নাহার কচিকে আসামি করে দন্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। কিন্ত মামলা দায়েরের ১৩ দিন পেরিয়ে গেলেও কোন আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাহমিনার বাবা ও মাসহ শতাধিক নারী-পুরম্নষ বৌলাই ছয়না গ্রাম থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার পথ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে গিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন। মানববন্ধন থেকে জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এনামুল হকসহ বিভিন্ন বক্তা অবিলম্বে আসামিদের গ্রেফতারের দাবি জানান এবং মামলাটি দ্রম্নত নিষ্পত্তির জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান।
তাহমিনার বাবা জয়নাল আবেদীন জানান, কিছুদিন আগে অ্যাডভোকেট লিটন তাহমিনাকে একটি মোবাইল ফোন উপহার দেন। এ নিয়ে লিটনের স্ত্রী কচি ভীষণ ড়্গিপ্ত ছিলেন। এ কথা মৃত্যুর কয়েকদিন আগে তাহমিনা ফোনে উত্তরায় অন্য এক বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে নিয়োজিত তাহমিনার বড়বোন তানজিনাকেও জানিয়েছিল বলে জয়নাল আবেদীন জানান।
মিরপুর থানার ওসি ভূঁইয়া মাহবুব হাসান জানান, আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৪৬ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৫