| সকাল ১১:০৮ - বুধবার - ১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১১ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ধোবাউড়ায় বউ আনতে গিয়ে কনের বাড়ির লোকজনের হামলায় জামাইসহ আহত ৭ : গ্রেফতার ৫

ধোবাউড়া প্রতিনিধি ঃ  ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শনিবারঃ 
ধোবাউড়া উপজেলার ঘোষগাঁও ইউনিয়নের জামাল উদ্দিনের ছেলে আকরাম হোসেন (২৫) এবং পূর্বধলা উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নের আঃ জলিলের মেয়ে মিতু আক্তার (১৯) দুজনের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এক পর্যায়ে গত জানুয়ারী মাসের ২৮ তারিখে প্রেমিক যুগল গোপনে বিয়ে করে। বিয়ের বিষয়টি উভয় পরিবারের মধ্যে জানাজানি হলে প্রেমিকের বাবা কনেকে বাড়িতে আনতে রাজি হলেও কনের বাবা রাজি হচ্ছিল না। শনিবার বিকালে কনে ফোন করে আকরামকে বলে বাড়িতে কেউ নেই তুমি এসে আমাকে নিয়ে যাও। কনের ফোনের উপর ভিত্তি করে শনিবার বিকালে আকরাম তার লোকজন প্রায় ১৫ টি মটরসাইকেল নিয়ে কনের বাড়িতে যায়। এসময় কনের বাড়ির লোকজন দা দিয়ে কুপিয়ে ও বল্লম দিয়ে আঘাত করলে জামাইসহ অন্তত ৭ জন ্‌আহত হয়। এছাড়া ১০ -১২ টি মটরসাইকেল ভাংচুর করা হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। আহতরা হলেন জাহাঙ্গীর, রাকিব, ইদ্রিস, তরিকুলসহ আরও কয়েকজন। এদের মধ্যে মারাত্বক আহত জামাই আকরাম হোসেনকে আহত করার খবর পেয়ে দর্শা গ্রামের মোশারফ হোসেনসহ কয়েকজনে উদ্ধার করে এনে ধোবাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বাকীদের পূর্বধলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুর্বধলা থানার ওসি আব্দুর রহমান জানিয়েছেন ৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৫০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৫