| রাত ৩:৫৬ - বৃহস্পতিবার - ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১১ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

পুলিশের কারণে অনেক ক্ষেত্রে ন্যায় বিচার ব্যাহত হয়: সুলতানা কামাল

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৫, বুধবার,
পুলিশের কারণে অনেক ৰেত্রে ন্যায় বিচার ব্যাহত হয় বলে মনৱব্য করেছেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল। তিনি বলেছেন, অনেক সময় পুলিশ ঠিকমত মামলা নেয় না। তারা ঠিকমত তদনৱ করে না। এছাড়া চার্জশীটে অহেতুক অনেকের নাম দিয়ে দেয়। এভাবে ন্যায়বিচার ৰতিগ্রসৱ হয়। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ অনেক সময় মনে করে ক্রসফায়ার ঠিক আছে। তাহলে ন্যায়বিচার কি করে প্রতিষ্ঠা হবে। আইনজীবীরা সমাজে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে শপথ নিয়েছে উলেস্নখ করে তিনি সকল আইনজীবীদের প্রতি মানবাধিকারের অঙ্গিকার থেকে কাজ করার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, যে অসীম ত্যাগের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল। স্বাধীনতার ৪৪ পর আজো অনেক কিছুই আমরা অর্জন করতে পারিনি। তবে এই ৪৪ বছরও বেশি কিছু নয়। এখন থেকেই আমাদের সামনে এগুনোর কাজটি শুরম্ন করতে পারি।
বুধবার সন্ধ্যায় কিশোরগঞ্জ জেলা জজ আদালতের সম্মেলন কৰে ‘বিচার ব্যবস’ার উন্নয়নে জেলা বারের ভাবনা ও করণীয় নির্ধারণ: প্রেৰিত কিশোরগঞ্জ জেলা বার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা মানবাধিকার আইনজীবী পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট গাজী মাহমুদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস’াপন করেন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের জেন্ডার এন্ড সোশ্যাল জাস্টিস ইউনিটের সিনিয়র সমন্বয়কারি অ্যাডভোকেট তৌফিক আল মান্নান। পরে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা ও দায়রা জজ মুহাম্মদ মাহবুব-উল-ইসলাম, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক মো. আওলাদ হোসেন ভূঁইয়া, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুছ ছালাম খান, জেলা বারের সভাপতি ও পিপি অ্যাডভোকেট শাহ আজিজুল হক, স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট এমএ আফজাল, বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মিয়া মো. ফেরদৌস, জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শহীদুল আলম, আইন ও সালিশ কেন্দ্রের সিনিয়র উপ-পরিচালক অ্যাডভোকেট সানাইয়া ফাহীম আনসারী, অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন সিদ্দিকী প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১:০৫ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৯, ২০১৫