| রাত ১:০৫ - রবিবার - ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

নান্দাইলে ষাটোর্ধ বৃদ্ধ তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ

 

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি ঃ  ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ সোমবার, 

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় ষাটোর্ধ এক বৃদ্ধ জোর করে ধরে নিয়ে ধর্ষণ করেছে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে। লোকলজ্জা ও সামাজিকতার ভয়ে ধর্ষিতার পরিবার মারাত্মক আহত ওই শিশুটিকে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দিলেও সুস্থ না হওয়ায় বিষয়টি প্রকাশ করতে বাধ্য হয়।

এক অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার বেতাগৈর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী চরশ্রীরামপুর মাইঝপাড়া গ্রামের এক দিনমজুরের মেয়ে (৯) স্থানীয় স্কুলের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে তার মা শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে পার্শ্ববর্তী বোনের বাড়িতে (ধর্ষিতার খালার বাড়িতে) বেগুন আনতে পাঠালে তিন সন্তানের জনক হাছেন আলী (৬২) তার বেগুন ক্ষেত থেকে বেগুন দেবার কথা বলে মুখ চেপে ধরে ক্ষেতেই তাকে ধর্ষণ করে বলে এ সংবাদাতাকে ধর্ষিতা জানায়।

পরে আহত মেয়েটি বাড়ি এসে ঘটনাটি তার মাকে জানালে রক্তক্ষরণ হলেও লোক লজ্জার ভয়ে বিষয়টি চেপে গিয়ে বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে থাকে। কিন্ত মেয়েটির অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় বিষয়টি তার স্বামীকে জানায়। এদিকে ধর্ষক ঘটনার পরপরই বাড়ি থেকে হাওয়া হয়ে যায়। একটি সুত্রে জানা যায় সে (ধর্ষক)) তিন দিনের নেছাবে চলে গেছে। প্রতিবেশী বাবুল মিয়া জানান, এমন একটি নেক্কারজনক ঘটনা দুঃখজনক।

ঘটনার পরপরই ধর্ষকের পক্ষে একটি মহল স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংসা করে দেবার জন্য জোর চেষ্টা চালায়। এমনকি ধর্ষকের ছেলে ও ছেলে বউ ধর্ষিতার মা-বাবাকে হাতেপায়ে ধরে বিষয়টি চেপে যেতে অনুরোধ করে। কিন্ত মেয়েটি অসুন’ হয়ে যাওয়ায় এবং বিষয়টি এলাকায় প্রকাশ পাওয়ায়  সোমবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখার সময় ধর্ষিতার বাবা মামলা দায়েরের জন্য নান্দাইল থানা এলাকায় অবস্থান করছিল।
এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার ওসি বলেন, অভিযোগ পেলেই মামলা গ্রহণ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।#

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪৯ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৫