| রাত ৩:২২ - বৃহস্পতিবার - ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ - ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

বাজিতপুরে বৃষ্টিতে ২৫ কিলোমিটার রাস্তা খানাখন্দঃ বাড়ছে যানজট

 
বাজিতপুর সংবাদদাতাঃ-০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শুৃক্রবার,

বাজিতপুরে ১৫৯ বছরের পৌরসভা রাসত্মা ও সিএন্ডবির ১৯ কিলোমিটার রাসত্মা, পৌরসভার ৬ কিলোমিটার রাসত্মা সংস্কারের অভাবে খানাখন্দ সৃষ্টি হয়েছে। খানাখন্দের বাজিতপুর সিনেমা হল মোড়, বড়-সড়ক ও সরারচরের রেল ক্রসিং মোড়ে প্রায় সময়ই সিএনজি, অটোবাইক, ট্রাক, লড়ি ও বিআরটিসি বাসে তীব্র যানজট লেগেই থাকে। এইসব কারণে প্রায় সময়ই যাত্রীদের ভোগানিত্মর শিকার হতে হচ্ছে বছরের পর বছর ধরে। সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, বাজিতপুর – ভাগলপুর ৫ কিলোমিটার রাসত্মা, সরারচর- উজানচর, ভাগলপুর – আগরপুর রাস্তাটি খানাখন্দ থাকার কারণে প্রায় সময়ই বড়ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। এই সব চিত্র সড়ক-জনপদ বিভাগ, এলই জিডি মন্ত্রানালয় ও পৌর কর্তৃপড়্গ দেখে ও না দেখার ভান করেযাচ্ছে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে পৌরশহরের বিভিন্ন জায়গা অবৈধ দখল দাররা দখল করার কারণে এই পৌরসভার প্রায় রাসত্মার মধ্যে একটু বৃষ্টি হলেই যেন হাটুপানি জমে যায়। অনেক সময় পৌর কর্তৃপক্ষকে এলাকার সচেতন জনগন মৌখিক ও লিখিত ভাবে অভিযোগ করে ও এর কোন প্রতিকার পাচ্ছেনা। এ দিকে, জনপদ বিভাগের ও ভূমি অফিসের বিভিন্ন খাল ভরাট করে নাব্যতা সৃষ্টি করছে ভূমি ধস্যুরা। বাজিতপুর সহকারী ভূমি কমিশনার গোলাম মোস্তফা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এজেড এম সারজিল হাসান ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার মাধ্যমে এই এলাকার প্রায় ২-৩কিলোমিটার বিভিন্ন খাল ভূমি ধস্যুদের হাত থেকে রক্ষা করে জলধারা সৃষ্টি
করেছে। অন্যদিকে, বড় সড়কের ব্রিজের অবস্থা নাজুক পড়ে রয়েছে গত তিন যুগ ধরে। ঝুঁকিপূর্ণ ব্রীজ দিয়ে প্রতিদিন ভারিযানবাহন চলাচল করে। যে কোন মূহুর্তে প্রাণ হানি ঘটতে পারে বলে অভিজ্ঞ মহলের ধারণা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৩৪ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০৪, ২০১৫