| সকাল ৭:৩৮ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শনিবার ২০ দলের বিক্ষোভ

অনলাইন ডেস্ক : ২ সেপ্টেম্বর ২০১৫, বুধবার,

গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে আগামী শনিবার সারা দেশে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোট। আজ বুধবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জোটের পক্ষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞপ্তির সঙ্গে একটি লিফলেটও দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, বিদ্যুৎ, গ্যাস ও সিএনজির দাম বাড়ানোর ফলে অনিবার্যভাবেই মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়বে। গ্যাস-বিদ্যুৎ-সিএনজির ‘অযৌক্তিক’ মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সবাইকে সোচ্চার হওয়ারও আহ্বান জানানো হয় তাতে।

নজরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। এজন্য জনগণের স্বার্থরক্ষার কোনো দায় তাদের নেই। আর এ কারণেই গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছে।

তিনি কুইক রেন্টালের নামে লুট করা হাজার হাজার কোটি টাকার দায় জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার সরকারি এই অযৌক্তিক, অন্যায় ও গণবিরোধী সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান। একই সাথে অবিলম্বে বর্ধিত এই মূল্য প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বিএনপির এই নেতা বলেন, বিদ্যুৎ, গ্যাস ও সিএনজির মূল্যবৃদ্ধিতে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়বে। কারণ, এর ফলে শুধু বিদ্যুৎ ও গ্যাসের বিল বাড়বে না, নিত্যপণ্যের দাম বাড়বে, যাতায়াত ব্যয় বাড়বে, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার ব্যয় বাড়বে, শিল্প ও কৃষি পণ্যের দাম বাড়বে। প্রত্যেকটি মানুষ ও প্রত্যেকটি পরিবারকে বাড়তি ব্যয়ের দুঃসহ বোঝা বহন করতে হবে।

তিনি বলেন, জনগণের কাছে দায়বদ্ধ সরকার কখনো এমন ভয়ানক জনবিরোধী সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এই সরকার জনগণের কাছে দায়বদ্ধ নয় বলেই মূল্যবৃদ্ধিতে জনগণের দুঃখ-দুর্দশার কথা বিবেচনা করেনি।

নজরুল ইসলাম বলেন, আমরা তাই জনগণের দ্বারা নির্বাচিত, জনগণের কাছে দায়বদ্ধ এবং জনগণের স্বার্থ রক্ষাকারী গণতান্ত্রিক ও দেশপ্রেমিক সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য অবিলম্বে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দাবি করছি।

তিনি বলেন, আমরা সরকারের এই গণবিরোধী, শিল্পবিরোধী, কৃষিবিরোধী, বিনিয়োগবিরোধী, কর্মসংস্থানবিরোধী তথা দেশবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল করার জন্য দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানাচ্ছি।

এটা প্রতিরোধ করা না গেলে আগামী ডিসেম্বরে গ্যাসের দাম আরো বাড়বে বলেও জানান তিনি। একই সাথে আগামী শনিবার দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানান নজরুল ইসলাম খান।

গত বছরের ডিসেম্বরে বিএনপি হুমকি দিয়ে রেখেছিল, গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে লাগাতার কর্মসূচি দেওয়া হবে। সরকার ১ সেপ্টেম্বর থেকে গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩০ আগস্ট জোটের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সেখানে বিক্ষোভ কর্মসূচি দেওয়ার বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছিল। এরপর আজ এ কর্মসূচির ঘোষণা এল।

উল্লেখ্য, গত ২৭ আগস্ট বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) বিদ্যুতের দাম গড়ে ২.৯৩ শতাংশ এবং গ্যাসের দাম গড়ে ২৬.২৯ শতাংশ বাড়ানোর ঘোষণা দেয়, যা ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:১২ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ০২, ২০১৫