| রাত ২:২৭ - রবিবার - ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

নান্দাইলে একই পরিবারের চারজনসহ পাঁচ খুন

অনলাইন ডেস্ক, ৪ জুলাই ২০১৫, শনিবার:

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় একই পরিবারের ভা্‌ই ও ৩ ভাতিজাসহ চারজনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ চাচা লাল মিয়া নামে এক ব্যাক্তি। । পুলিশ জানিয়েছে, জমি নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জেরে উপজেলার বাঁশাটি গ্রামে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।  নিহতরা হলেন ওই গ্রামের পঞ্চাশোর্ধ ভাই বিল্লাল হোসেন, তাঁর তিন ছেলে ফরিদ, পাভেল ও হিমেল।  পরে  আজ সকালে লাল মিয়ার ছেলে জামালের (৩৫) লাশও উদ্ধার করেছে এলাকাবাসী।nandail pic

এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার চন্ডীপাশা ইউপির পশ্চিম বাশাটি গ্রামের লাল মিয়া ও বিল্লাল দুই ভাই আলাদা আলাদা বাড়িতে বাস করেন। শুক্রবার সকালে স্বামী পরিত্যক্ত বোনের সাথে লাল মিয়ার ঝগড়া হয়। ছোট ভাই বিল্লাল বোনের পক্ষ নিয়ে কথা বললে লাল মিয়া বিল্লালের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এ ঘটনা ঘটায় বলে ঘটনাস্থলে এলাকাবাসী ও নান্দাইল থানা পুলিশ জানায়। রাত ১০টার দিকে লাল মিয়া ও তার ছেলেরা অর্তকিতভাবে বিল্লালের (৫৫) বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় কুপিয়ে বিল্লাল ও তার ছেলে পাভেলকে (১৬) হত্যা করে এবং বিল্লালের স্ত্রী বানেচা খাতুনকে (৪৫) গুরুতর জখম করে। এ দৃশ্য দেখে বিল্লালের বড় ছেলে ফরিদ (৩২) দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে ধাওয়া করে বাড়ির পাশে রাস্তায় ফেলে তাকেও গলাকেটে হত্যা করা হয়। বিল্লালের ছোট ছেলে হিমেল (১৪) পালিয়ে বাড়ির পাশেই নানার বাড়িতে আশ্রয় নিতে গেলে তাকে ধরে এনে রাস্তায় ফেলে কুপিয়ে হত্যা করে লাল মিয়া ও তার ছেলেরা। নান্দাইল মডেল থানা পুলিশের হেফাজতে রাতেই বানেচা খাতুনকে গুরুতর অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপরদিক শনিবার সকালে অভিযুক্ত লাল মিয়ার ছেলে জামালের লাশ বাড়ির পাশ থেকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী। ধারণা করা হচ্ছে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে জামাল মারা যেতে পারে। রাত ২টার সময় ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মইনুল হক ঘটনাস্থল গরিদর্শন করেছেন। ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে পুলিশ একজনকে আটক করেছে ।

এদিকে ঘটনার পর থেকেই খুনিরা পলাতক রয়েছে। ঘটনার পর পরই  ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে খুনিদের আটকের নির্দেশ দিয়েছেন এসপি মইনুল হক। এর পর পরই অভিযুক্ত লাল মিয়া ও তার সহযোগীদের আটক করতে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, ইশ্বরগঞ্জসহ আশপাশের পুলিশ ও সাদা পোশাকের পুলিশ অভিযান পরিচালনা করছে।

এ বিষয়ে গৌরীপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. আকতারুজ্জামান  বলেন, ‘এটা নিজস্ব ফ্যামেলিগত ব্যাপার। বড় ভাইরে নাকি ছোট ভাই মেরে ফেলছে, খুন করছে। বড় ভাই  ও আরো তিন জনসহ মোট চারজনকে মেরে ফেলছে।’  তিনি বলেন, ‘আমরা খুব তৎপরতা চালাচ্ছি। যারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের খুব তাড়াতাড়ি অ্যারেস্ট করার জন্য।’

এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মঈনুল হক লোক লোকান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘জমি নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে’। তিনি বলেন, বিল্লালের চাচাতো ভাই লাল মিয়া ও তার ছেলে কামাল ও জামাল জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:৩৭ অপরাহ্ণ | জুলাই ০৪, ২০১৫