| সকাল ৮:১২ - বৃহস্পতিবার - ১৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ৩রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

গ্রাহকদের জন্য #দেয়ার খুশি# বার্তা নিয়ে গ্রামীণফোন

অনলাইন ডেস্ক, ১ জুলাই ২০১৫, বুধবার:
সারা দেশ জুড়ে সবার সাথে পবিত্র রমজান এবং আসন্ন ঈদ উল ফিতরের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে গ্রামীণফোন শুরু করলো “#দেয়ার খুশি” ক্যাম্পেইন।
এই ক্যাম্পেইনের আওতায় গ্রামীণফোন তাদের গ্রাহকদের কাছ থেকে এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যবহৃত ইন্টারনেট ব্যবহার উপযোগী হ্যান্ডসেট সংগ্রহ করবে এবং বিশ্বের সর্ববৃহৎ উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান ব্র্যাক এর সহায়তায় দেশের দুস্থ জনগোষ্ঠীর মাঝে দান করে করবে। আজ এই উপলক্ষে উভয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে জিপিহাউজে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।
এই উদ্যোগের মাধ্যমে গ্রাহকদেরকে তাদের পুরানো বা ব্যবহৃত ইন্টারনেট ব্যবহার উপযোগী হ্যান্ডসেট দেশজুড়ে অবস্থিত গ্রামীণফোন সেন্টারে দান করার জন্য উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। প্রাপ্ত প্রতিটি ডিভাইস গ্রামীণফোন মেরামত করে ব্র্যাকের কাছে তুলে দিবে। এই হ্যান্ডসেটগুলো পরবর্তীতে তরুণ ও উৎসাহী উদ্যোক্তা বা সমাজের অনুকরণীয় ব্যক্তিদেরকে উপহার হিসেবে দেওয়া হবে; আর সাথে থাকছে এক বছরের ফ্রি ইন্টারনেট সাবস্ক্রিপশন। প্রাথমিকভাবে গ্রামীণফোনের দেয়া ৫০০ হ্যান্ডসেট এর মাধ্যমে এই ক্যাম্পেইন শুরু হবে।
“#দেয়ারখুশি” ক্যাম্পেইন সম্পর্কে গ্রামীণফোনের হেড অফ মার্কেটিং নেহাল আহমেদ বলেন, “এই উদ্যোগের মাধ্যমে গ্রামীণফোন সেই সব মানুষকে সাহায্য করতে চায় যারা নিজেরা হয়তো ইন্টারনেট উপযোগী হ্যান্ডসেট ব্যবহার করার সুযোগ পেতো না। মানুষের জীবন এবং সমাজে ইন্টারনেট অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। এই উৎসব উপলক্ষে আমাদের উদ্যোগটির মাধ্যমে সবার জন্য ইন্টারনেট পৌছে দেওয়ার লক্ষ্যে আরো এক ধাপ এগিয়ে যাবো আমরা।”
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে ব্র্যাকের প্রতিনিধি আহমেদ নাজমুল হোসেন বলেন,”এই উদ্ভাবনী ক্যাম্পেইনের সাথে থাকতে পেরে আমরা আনন্দিত এবং আমাদের বিশ্বাস এই ইন্টারনেট ব্যবহারের উপযোগী হ্যান্ডসেটগুলো প্রাপকদের জীবনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।”
গ্রামীণফোনের “#দেয়ারখুশি” ক্যাম্পেইনটি সারা দেশজুড়ে ঈদ উল ফিতর পর্যন্ত পরিচালিত হবে। গ্রাহকরা যেকোন গ্রামীণফোন সেন্টারে জাতীয় পরিচয় পত্র, পাসপোর্ট অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর অনুলিপি সহ তাদের পুরানো ফোন দান করতে পারবেন। হ্যান্ডস্টে সংগ্রহের জন্য এছাড়াও গ্রামীণফোনের প্রতিনিধিরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রতিষ্ঠানিক কার্যালয়ে যাবে।
গ্রামীণফোনের লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশে সবার জন্য ইন্টারনেট পৌছে দেওয়া। উচ্চ মূল্যের হ্যান্ডসেট বাংলাদেশে ইন্টারনেটের সার্বজনীন ব্যবহার ব্যাহত করছে। আর এজন্য হ্যান্ডসেট সহজলভ্য করতে গ্রামীণফোন নানাবিধ উদ্যোগ গ্রহন করছে। “#দেয়ারখুশি” ক্যাম্পেইন এর মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে দুস্থ জনগোষ্ঠীর মাঝে ইন্টানেটের সুবিধা পৌছে দেওয়ার মাধ্যমে তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নে সহায়তা করা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪৯ অপরাহ্ণ | জুলাই ০১, ২০১৫