| দুপুর ২:৫৩ - শনিবার - ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

পেরুকে হারিয়ে ফাইনালে চিলি

কোপা আমেরিকার ৪৪তম আসরে পেরুকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে স্বাগতিক চিলি। জর্জ সাম্পাওলির শিষ্যরা পেরুকে ২-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে উঠে। দলের হয়ে জোড়া গোল করেন ভারগাস।

ম্যাচের নবম মিনিটে আক্রমণে যায় পেরু। গোলবারের বাম দিক থেকে গুয়েরেরোর বাড়িয়ে দেওয়া বলে হেড করেন ফারফান। স্বাগতিক গোলরক্ষক ব্রাভো ঝাঁপিয়ে পড়েও বলের নাগাল পাননি। বল গিয়ে লাগে গোলবারে।

২০ মিনিটের মাথায় পেরু দশ জনের দলে পরিণত হয়। সপ্তম মিনিটে একবার হলুদ কার্ড দেখা কার্লোস জামব্রানো বলের দখল নিতে গিয়ে চিলির ফুটবলার আরানগুয়েজকে আঘাত করেন (বুটের আঘাত পান আরানগুয়েজ)। ম্যাচের দায়িত্বে থাকা রেফারি জে. আরগোতে লাল কার্ড দেখিয়ে জামব্রানোকে মাঠের বাইরে পাঠিয়ে দেন।

২৮ মিনিটে দশ জনের পেরুকে চেপে ধরা স্বাগতিকরা গোলের দেখা পেতে পারত। ভালদিভিয়ার জোরালো শটটি গোলবারের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায়। দুই মিনিট পরেই ফারফানের আরেকটি শট রুখে দেন চিলিয়ান গোলরক্ষক ব্রাভো। ৩৪ মিনিটে ভারগাসের ডি-বক্স থেকে নেওয়া শট পেরুর ডিফেন্সে বাধা পায়।

শুরু থেকেই পেরুকে আশা দেখানো ফারফান ম্যাচের ৩৮ মিনিটের মাথায় গুয়েরেরোকে সঙ্গে নিয়ে চিলির বক্সে আক্রমণ চালান। বার্সেলোনার হয়ে গোলবারের নিচে দায়িত্ব পালন করা ট্রেবল জয়ী চিলিয়ান ব্রাভো এবারো দলকে রক্ষা করেন।

ফাইনালের টিকিট কাটতে আর দলকে এগিয়ে নিতে ম্যাচের ৪২ মিনিটে গোল করেন চিলির ভারগাস। স্বাগতিকদের লিড নিতে গোলবারের বামপাশ দিয়ে বল বাড়িয়ে দেন সানচেজ। আরানগুয়েজ বলের লাইন মিস করলেও সেটি গিয়ে পেরুর গোলবারে লেগে ফিরে আসে। ফিরতি বলে আলতো টোকা দিয়ে দলকে লিড পাইয়ে দেন ভারগাস।

প্রথমার্ধে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

বিরতির পর ম্যাচের ৬৪ মিনিটে আরও একটি গোল করে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন ভারগাস। তবে, ৬০ মিনিটে সমতায় ফিরেছিল পেরু। মেডেলের আত্মঘাতি গোলে ১-১ এ সমতায় এসেছিল দুইবারের চ্যাম্পিয়নরা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ | জুন ৩০, ২০১৫