| রাত ৯:১১ - শনিবার - ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

কক্ষ আছে কর্মকর্তা নেই নান্দাইল সরকারি কর্মকর্তারা ইউনিয়ন পরিষদে বসে না; সেবা থেকে বঞ্চিত জনগণ

 

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি ঃ ২৭ জুন ২০১৫, শনিবার,

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় গুলোতে বিভিন্ন দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অফিসে পাওয়া যায় না বলে অভিযোগ রয়েছে। ফলে তৃণমূল মানুষ সেবামূলক কাজ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে ভবন নির্মিত ইউনিয়ন পরিষদের ভবেন অফিস কক্ষ বরাদ্দ থাকলেও সংশিস্নষ্ট দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্তদের দেখা মেলে না। ফলে বাড়তি অর্থ ও সময় ব্যয় করে সেবা নিতে উপজেলার বিভিন্ন অফিসে যেতে হচ্ছে দূরদূরানেত্মর মানুষ। জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদের নীতিমালা অনুযায়ী এলজিইডি সহকারী প্রকোশলী, উপসহকারী প্রকৌশলী, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদফতরের টিউবওয়েল মেকানিক, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, পরিবার পরিকল্পনা সহকারী, প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের সহকারী শিড়্গা কর্মকর্তা, ভেটেনারী ফিল্ড অফিসার ও ভেটেনারি ফিল্ড এসিস্টেন্ট, ইউনিয়ন সমাজকর্মী, আনসার ও ভিডিপির ইউপি দলনেতাদের নির্ধারিত অফিস কড়্গে গ্রামীণ লোকজনদের সেবা প্রদানের নির্দেশনা রয়েছে। (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন-২০০৯ এর ৬৩ ধারা মোতাবেক ওই সব অফিসের প্রতিনিধির নিয়মিত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক প্রদত্ত দায়িত্ব পালন করবেন। কিন’ দেখা মেলে না দায়িত্ব প্রাপ্তদের। সরেজমিন গিয়ে ইউনিয়ন ভবনে দেখা গেছে, ভবনের দরজাগুলোর উপরে কর্মকর্তাদের নামের নেইম পেস্নট রয়েছে, কিন’ কর্মকর্তা নেই। এ ব্যাপারে ১নং বেতাগৈর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবুল হোসেন ও ৪নং চন্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ এমদাদুল হক ভূইঁয়া জানান, মাসে দুইএকদিন বিভিন্ন দফতরের কর্মকর্তারা এসে থাকেন এবং বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সভার রেজুলেশন লেখে তাদের থেকে ইউপি সচিবরা গিয়ে স্বাক্ষর নিয়ে আসেন। এতে করে সাধারন জনগণের প্রত্যাশিত সেবা পুরণ হচ্ছেনা। #

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:৪৩ অপরাহ্ণ | জুন ২৭, ২০১৫