| দুপুর ১২:৫৬ - বুধবার - ৩০শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৫ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

ঈশ্বরগঞ্জে অবৈধ গো-হাটে বেকায়দায় ইজারাদার ঃ রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার

 

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি, ২৬ জুন ২০১৫, শুক্রবার,
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের সরকারি বাজার ইজারা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারের ইজারাদার। সরকারি তালিকাভুক্ত গরম্নর হাটটি নষ্ট করার জন্য একটি চক্র বাজারটির আশপাশে অবৈধভাবে আরো তিনটি হাট বসিয়েছে। ইজারাদার বিষয়টি লিখিত ভাবে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করলেও অবৈধ বাজার বন্ধে প্রশাসন কতৃর্ক কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় উভয় পড়্গে বাড়ছে উত্তেজনা । যে কোন সময় ঘটতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।
মাইজবাগ ইউনিয়নে সরকারি তালিকাভুক্ত গরম্নর বাজার লক্ষ্মীগঞ্জ। মাইজবাগ ইউনিয়নের লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারটি সাড়ে ১১ লাখ টাকায় ইজারা নেন পাভেল রাজ। নিয়ম অনুযায়ী সরকারি ভাবে ইজারা দিলেও একটি চক্র লক্ষ্মীগঞ্জ বাজারের তিন পাশে মাইজবাগ, হারম্নয়া ও নওশতি বাজারে অবৈধভাবে গরম্নর হাট বসিয়েছে। এনিয়ে উপজেলা প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দেওয়ায় ইজারাদার ও বিরোধী চক্রের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কার ভয় কাজ করাতে ক্রেতা-বিক্রেতা শূন্য হয়ে পড়ছে সরকারি ভাবে ইজারা দেওয়া বাজার। অপরদিকে বাজার গুলোতে সরকারি ইজারা না থাকায় রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।
পাভেল রাজ জানান, বাজারটি ইজারা নেওয়ার পর থেকে নিজেরা ইজারা নিয়েছেন মর্মে মাইকিং করে একটি চক্র মাইজবাগ, হারম্নয়ায় ও নওশতি বাজারে গরম্নর হাট বসানো শুরম্ন করে। লক্ষ্মীগঞ্জ বাজার ইজারা নিতে ব্যর্থ হওয়ায় তারা সরকারি বাজারটি নষ্ট করতে আলাদা বাজার বসাচ্ছে। এতে তিনি আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত ভাবে জড়িতদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আবেদন করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি তদত্ম শেষে থানা পুলিশকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য চিঠি দেন। পুলিশ ইউএনওর আবেদনের প্রেক্ষিতে ৫ জুন রাতে মো. সেলিম নামে এক জনকে আটক করে। পরে তার কাছ থেকে আর বাজার বসাবে না মর্মে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়। ইজারাদার পাভেল রাজ বলেন, তিনি সরকারের কাছ থেকে টাকা দিয়ে বাজার নিলেও ওই চক্রটি নাম মাত্র ইজারার ঘোষণা দিয়ে বাজার বসানোয় সরকারি বাজারে ক্রেতা বিক্রেতা শুন্য হয়ে পড়ছে। এতে তিনি আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজীব কুমার সরকার বলেন, ইতোমধ্যে অবৈধ বাজার গুলোতে সংশিস্নষ্ট ব্যাক্তিদের কাছে বাজার না বসাতে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তারপরও বাজার অব্যাহত থাকলে অবৈধ বাজার বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জড়িতদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।##

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:২৮ অপরাহ্ণ | জুন ২৬, ২০১৫