| সকাল ৭:৩৯ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের মহতি উদ্যোগ ১ লাখ পোনামাছ অবমুক্তকরণ কর্মসুচী

মতিউল আলম ও শাহ আলম উজ্জল, ২৫ জুন ২০১৫, বৃহস্পতিবার:
‘‘মাছে ভাতে বাঙ্গালী’’ বাঙ্গালী জাতির ঐতিহ্যবাহী এই শ্লোগানটি আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। হারানো ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন, ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ মহতি উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মঈনুল হকের নেতৃত্বে জেলায় বিভিন্ন দেশী প্রজাতির ১লাখ পোনামাছ মুক্ত জলাশয়ে অবমুক্ত করার কর্মসুচী হাতে নিয়েছেন। তারই অংশ হিসেবে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় শহরের শিল্পাচার্য জয়নুল পার্ক সংলগ্ন ব্র‏ক্ষপুত্র নদে ৩০ হাজার মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। পোনামাছ অবমুক্ত করার আগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পুলিশ সুপার মঈনুল হক। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র ইকরামুল হক টিটু, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষনা ইনস্টিটিউটের সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এ এইচ এস কোহিনুর, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা লুৎফর রহমান, জেলা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি মোমতাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক এড, সাদিক হোসেন প্রমুখ।
ময়মনসিংহ পৌরসভার মেয়র টিটু, পোনামাছ অবমুক্তকরনকে পুলিশের মহতি উদ্যোগ বলে আখ্যায়িত করেন। এই উদ্যোগের প্রশংসা করে বলেন, মৎস্য সম্পদ সমৃদ্ধ করতে ৰুদ্র ৰুদ্র উদ্যোগগুলো একদিন বৃহৎকারে পরিণত হবে। দিনদিন প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। এগুলো রৰা করতে হবে।
পুলিশ সুপার বলেন, আমাদের দেশ কত যে সম্পদে ভরা পরিপূর্ন তা আমরা উপলব্ধি করতে পারি না। দেশটা সোনার ডিমপাড়া রাজহংস। সেই সোনার ডিম পাড়া রাজহংসকে আমাদের লালন করতে হবে। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো লালন না করায় মিঠাপানির মৎস্য সম্পদ কমে যাচ্ছে। মাছের অভয়ারন্যগুলো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। এই জেলা ও দেশের মৎস্য সম্পদকে রৰার্থে এই ৰুদ্র উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আলোচনা শেষে ব্র‏ৰপুত্র নদে ৩০ হাজার পোনামাছ অবমুক্ত করেন। ###

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:৫২ অপরাহ্ণ | জুন ২৫, ২০১৫