| বিকাল ৩:১০ - শনিবার - ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ভৈরবে পাদুকা মার্কেটে আগুন, ১৪ কারখানা পুড়ে ছাই

সিম্মী আহাম্মেদ, কিশোরগঞ্জ ●২৪ জুন ২০১৫, বুধবার:
কিশোরগঞ্জের ভৈরব শহরের কমলপুরে নিজাম পাদুকা মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় অন্তত ১৪টি পাদুকা কারখানা পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বৈদ্যুুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছে। এতে অনৱত কোটি টাকার ৰতি হয়েছে বলে ৰতিগ্রস’ কারখানা মালিকেরা দাবি করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও কারখানা সংশিস্নষ্টরা জানায়, হাজী ফুল মিয়ার মালিকানাধীন নিজাম পাদুকা মার্কেটে আড়াইশ’র মতো পাদুকা কারখানা রয়েছে। ঈদকে সামনে রেখে পাদুকা তৈরিতে কারিগরদের নির্ঘুম রাত কাটছে। বুধবার ভোর রাতে পাদুকা কারখানার কারিগররা কাজ শেষে ঘুমিয়ে পড়ে। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পেয়ে মার্কেটে আগুন লাগার বিষয়টি বুঝতে পারে তারা। খবর পেয়ে ভৈরব ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস’লে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। এসময় পার্শ্ববতী পাদুকা পাইকারি মার্কেটের বহুতল ভবনের বাসিন্দা অর্ধশতাধিক পরিবারের কয়েকশ’ লোকজন আতঙ্কে নিচে নেমে আসে। এছাড়া অগ্নিকা-ের খবর পেয়ে কয়েক হাজার মানুষ মার্কেটের সামনের ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কে ভিড় জমালে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। উৎসুক জনতার ভিড় সামলাতে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যদের হিমশিম খেতে হয়। এ সময় ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের উভয় দিকে অনৱত ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। প্রায় ৩ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও ততক্ষণে ১৪টি কারখানা পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ভৈরবের ইউএনও জেসমিন আক্তারসহ প্রশাসনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা ঘটনাস’ল পরিদর্শন করেছেন।
ভৈরব পাদুকা মালিক সমিতির সভাপতি মো. আবদুল লতিফ জানান, আগুনে মার্কেটের রেকেট সুজের মালিক বাচ্চু মিয়ার ৭টি, এবি সুজের মালিক মো. আব্দুল গাফফারে ৬টি ও শামীম সুজের মালিক শামীম মিয়ার একটি কারখানা পুড়ে গেছে। এতে অনৱত কোটি টাকার ৰতি হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:৫২ অপরাহ্ণ | জুন ২৪, ২০১৫