| সকাল ৮:১২ - রবিবার - ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

এমপিকে অতিথি না করায় হামলায় কর্মশালা পণ্ড

 কিশোরগঞ্জ ও পাকুন্দিয়া প্রতিনিধি | ২৩ জুন ২০১৫, মঙ্গলবার,

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় স্থানীয় এমপিকে অতিথি না করায় এমপির সমর্থকদের হামলায় অটিজম বিষয়ক কর্মশালায় পণ্ড হয়ে গেছে। মঙ্গলবার সকালে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ব্যবস্থাপনায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে কর্মশালা শুরুর পর দুপুর ২টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় সম্মেলন কক্ষের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পাকুন্দিয়ার ইউএনও মোশাররফ হোসেন খানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রেনু। সকাল ১১টা দিকে কর্মশালা শুরুর পর প্রথম পর্ব নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয়। দুপুর ২টার দিকে কর্মশালার দ্বিতীয় পর্বে অটিজম বিষয়ক কর্মশালার প্রশিক্ষক ও কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক এমপি ডা. মোঃ আবদুল মান্নান-এর ছেলে মাজহার মান্না পার্থ উপস্থাপনা শুরু করতেই বর্তমান এমপি অ্যাডভোকেট সোহরাব উদ্দিনের সমর্থকেরা হামলা চালায়। এমপি সমর্থিত গ্রুপের নেতা হিসেবে পরিচিত সাবেক ভিপি আবদুল হাকিম, সাবেক ভিপি ফরিদ উদ্দিন, সাবেক ভিপি হেলাল উদ্দিন প্রমুখের নেতৃত্বে এ হামলায় সম্মেলন কক্ষের চেয়ার-টেবিল ভাঙচুর করা হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান রেনু সমর্থক কয়েকজন নেতাকর্মী লাঞ্ছিতও হন। এর ফলে কর্মশালা প- হয়ে যায়।
এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রেনু বলেন, প্রশিক্ষক মাজহার মান্না পার্থ হলেন সাবেক এমপি প্রফেসর ডা. মো. আবদুল মান্নান-এর পুত্র। ২০০৮ সালের নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার ক্ষোভ থেকে বর্তমান এমপির সমর্থকেরা সাবেক এমপি’র পুত্রের অনুষ্ঠানে এ হামলা চালিয়েছে।
এ ব্যাপারে এমপি এডভোকেট সোহরাব উদ্দিনের বক্তব্য পাওয়া না গেলেও এমপি সমর্থক সাবেক ভিপি শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, এমপিকে না জানিয়ে অনুষ্ঠান আয়োজন করায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা এতে বাধা দেয়। এরপরও গায়ের জোরে অনুষ্ঠান শুরু করায় তা পণ্ড করে দেয়া হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:২৬ অপরাহ্ণ | জুন ২৩, ২০১৫