| রাত ৯:৫৭ - বৃহস্পতিবার - ২৪শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ২৯শে রবিউস সানি, ১৪৪৪ হিজরি

টাঙ্গাইলে ছেলেকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা

টাঙ্গাইলে দেড় বছর বয়সী শিশুপুত্র শাহীনকে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছে বাবা রনজু মিয়া(২৫)।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঘাটাইল উপজেলার জামুরিয়া ইউনিয়নের কাত্রা গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। ঘাতক রজনু উপজেলার জামুরিয়া ইউনিয়নের কাত্রা গ্রামের আ. গফুরের ছেলে।

এলাকাবাসী জানান, দুপুরে স্ত্রী শামীমা ও তার দেড় বছরের শিশুপুত্র শাহীনকে নিয়ে বাড়ির পাশের আনিছের রাইচ মিলে ধান ভাঙাতে যান রনজু। ধান ভাঙাতে দেরি হওয়ায় রনজু মিয়া তার ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে চলে আসেন। বাড়িতে এসে রনজু ছেলেকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে।

এরপর লাশ বালিশ ও পিঁড়ি দিয়ে ঢেকে রাখেন। শিশু পুত্রকে হত্যার পর রনজু নিজ ঘরের আঁড়ার সঙ্গে রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। রনজুর স্ত্রী শামীমা ধান ভাঙিয়ে বাড়ি ফিরে শিশুপুত্র শাহীনের লাশ বালিশ চাপা অবস্থায় এবং তার স্বামীর লাশ ঘরের আঁড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান।

শামীমার ডাক চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। পরে খবর পেয়ে ঘাটাইল থানা পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

রনজু মিয়ার মা রানী বেগম জানান, ৫/৬ মাস ধরে রনজু মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। তার মা ও চাচা মজিবর রহমান সহ পরিবারের লোকজনের ধারণা মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে সে এরকম ঘটনা ঘটিয়েছেন।

ঘাটাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোখলেছুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে  জানান, বাবা-ছেলের লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে সে এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে, তবে ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:৩৩ পূর্বাহ্ণ | জুন ১৯, ২০১৫