| দুপুর ১২:৪৯ - শুক্রবার - ৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ধোবাউড়ায় দুর্নীতি সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিককে হুমকি,

 

ধোবাউড়া প্রতিনিধি: ১৭ জুন ২০১৫, বুধবার,
ধোবাউড়ায় উপজেলা সাবরেজিষ্টারের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘুষ না দেওয়ায় এক দলিল লেখককে শোকজ করেছেন সাবরেজিষ্টার নূরে তোজাম্মেল। এদিকে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করায় স’ানীয় এক সাংবাদিককে পা ভেঙ্গে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন সাবরেজিষ্টার সমর্থিত এক দলিল লেখক। উপজেলা সাবরেজিষ্টারের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে নির্ধারিত ফিসের সাথে বিভিন্ন খাত দেখিয়ে প্রতি দলিলে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা ঘূষ নেয়ার। একটি ভায়া দলিল ফটোকপি বাবদ ঘুষ ১ হাজার, খারিজ ফটোকপি বাবদ ১ হাজার টাকা ঘুষ দিতে হয়। আর ঘুষ না দিলে খাস কামরায় ডেকে নিয়ে দলিল লেখককে শোকজ করে দেওয়ার হুমকি দেন। গতকাল মঙ্গলবার ১৩ লক্ষ ৭৬ হাজার টাকা মূল্যের একটি দলিলের ফটোকপির এসপি দেওয়া হয় ১ হাজার এবং শেরেস-া বাবদ সাড়ে ৭ হাজার টাকা দিয়েছেন এক দলিল লেখক বলেন। ঘুঘের টাকাগুলো অফিস সহকারী রেজাউল হক এবং এসপি’র টাকাগুলো রতন বাবু উত্তোলন করে সাবরেজিষ্টারকে দেন বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে। আর সেখান থেকে তাদেরকে ভাগ দেওয়া হয়। এছাড়া ডিআর বাবদ ২০০ টাকা এবং পে অর্ডার এর জন্য দিতে ২০০ টাকা। দলিলের নকল উত্তোলনেও রয়েছে দুর্নীতির অভিযোগ। প্রতি দলিল এর জন্য দিতে হয় ১৫০০ টাকা। গত কিছুদিন আগে সাবরেজিষ্টার কতিপয় দলিল লেখকের সাথে গোপন সভা করে প্রতি দলিলে আরও তিনশত টাকা ঘুষ দেওয়ার সিদ্ধান- হয়। এরপর মিষ্টি বিতরণও করা হয়। এবিষয়ে দলিল লেখকরা অভিযোগ দিলে ময়মনসিংহের স’ানীয় কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করা হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সাংবাদিককে পা ভেঙ্গে দেওয়ার হুমকি দেন। এদিকে ২৯.০৩.১৫ তারিখে গামারীতলা মৌজার দলিল নং-১১২২এ ০০.৩৭ একর সম্পত্তির চৌহুদী পরিবর্তন করে যার ফলে বাজারের জায়গা হওয়ায় দাতা ও গ্রহীতার বড় ধরনের ক্ষতি হয়েছে। কিছুদিন পরে দাতা গ্রহীতা জানতে পারে মোটা অংকের টাকা নিয়ে দলিলের চৌহুদী পরিবর্তন করে। এ ব্যাপারে সাবরেজিষ্টারের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি। দলিল লেখকদের জিম্মি করে এভাবে ঘুষ বানিজ্যের প্রতিবাদ জানিয়ে সাবরেজিষ্টারের বদলীর দাবি জানিযেছেন ভুক্তভোগীরা।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৫৯ অপরাহ্ণ | জুন ১৭, ২০১৫