| সকাল ৮:৩৭ - শনিবার - ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

মুক্তাগাছায় সন্ত্রাসীদের হামলায় বাড়ি তছনছ, আহত-৩

 

মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি, ১৪ জুন ২০১৫, রবিবার,
ধান-চাল ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে এখানে সেখানে। ধালা- বাসন পড়ে আছে ক্ষেতে। লেখাপড়ার বই, তুষক বাসছে পুকুরে। মুরগির ছানাগুলো পড়ে আছে ঘরের মেঝেতে। টিন আর ঘরের খুটি ঝড়ো করে রাখা হয়েছে অন্য স্থানে।  এ যেন মধ্যযুগিয় কায়দায় সন্ত্রাসীদের হামলা। এভাবেই হামলা চালিয়ে একটি বাড়ি তছনছ করে দেয় সন্ত্রাসীরা। লুটপাট করা হয় নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার। তাদেরকে বাঁধা দেওয়ায় মারধর করে পরিবারের ৩ সদস্য গুরুতর আহত করে। নির্মম এ ধরণের ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দুপুরে উপজেলার বাহেঙ্গা-ভেলামারি গ্রামে। ঘটনার প্রতিবাদে ওইদিন বিকেলে এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল বের করে ঘটনার প্রতিবাদ জানায়। এ ঘটনায় গতকাল রোববার বিকেলে মুক্তাগাছা থানায় মামলা হয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, মুক্তাগাছা উপজেলার প্রত্যন- অঞ্চল বাহেঙ্গ-ভেলামারি গ্রামের আবুল কালাম দীর্ঘদিন ধরে পৈত্তিক সম্পত্তির ১৮ শতাংশ জমির ওপর বাড়ি তৈরি করে বসবাস করে আসছে। এ জমিটি দখল করতে একই এলাকার আঃ খালেক নানাভাবে চেষ্টা চালিয়ে আসছে। ঘটনার দিন আঃ খালেক ২০ থেকে ৩০ জনের একটি ভাড়াটিয়া অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের নিয়ে আবুল কালামের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। তারা বাড়িটি কুপিয়ে তছনছ করে। ঘরের টিন কেটে ছিন্ন ভিন্ন করে দেয়। ঘরে থাকা ধান-চাল ছিটিয়ে ফেলে দেয় বাড়ির আঙ্গিনায়। সন-ানদের পড়ার বই, লেফ- তুষক আসবাবপত্র ফেলে দেওয়া হয় পুকুরে। পানির কল,থালা-বাসনপত্র দুমড়ে মুচড়ে ফেলা দেওয়া হয় বাড়ির চারপাশে। মুরগির ছানাগুলো পা দিয়ে চাপা দিয়ে মেরে ফেলা হয়। তাদের অস্ত্রের মহড়ায় এলাকাবাসী কেউ তাদের বাঁধা দিতে সাহস পায়নি। এভাবেই আবুল কালামের বাড়িটি তছনছ করে দেয় সন্ত্রাসীরা। এ সময় আবুল কালামের মাদ্রাসায় পড়-য়া মেয়েকে অপহরণের চেষ্টা চালানো হয়। বাঁধা দেওয়ায় আবুল কালাম ও তার স্ত্রী নাছিমা এবং ছেলে নাছির উদ্দিনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মুক্তাগাছা থানার ওসি কামাল হোসেন বলেন,ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৪৯ অপরাহ্ণ | জুন ১৪, ২০১৫