| সকাল ৯:৫৬ - শনিবার - ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ - ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

আরও উঁচুতে তামিম

অন লাইন ডেস্ক,১৪ জুন ২০১৫, রবিবার  :

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বাধিক রানের গৌরব এখন তামিম ইকবালের। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশারকে এতে ছাড়িয়ে গেলেন বাংলাদেশের  বাঁ-হাতি এ ড্যাশিং ওপেনার। নিজের রেকর্ড ভেঙে যেতে দেখে অবশ্য খুশি বর্তমানে বাংলাদেশ দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার। তার আশা টেস্টে তামিম ব্যাট হাতে একদিন ১০০০০ রানের ল্যান্ডমার্ক পার করবেন। তবে গতকাল ফতুল্লায় দিন শেষে তামিম ইকবাল জানালেন ভিন্ন হতাশার কথা। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ৩ হাজারী ক্লাবে তামিমের নাম ওঠে সর্বশেষ পাকিস্তান সিরিজেই। ভারতের বিপক্ষে ফতুল্লা টেস্টের প্রথম ইনিংসে তামিম ব্যাটে ৭ রান পেতেই ছাড়িয়ে যান বাশারকে। সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশারের ক্যারিয়ারে ৫০ টেস্টে সংগ্রহ ৩০২৬ রান। তামিম তা টপকে গেলেন ৩৯ টেস্টে। ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে বাংলাদেশ প্রথমবার ব্যাট করার সুযোগ পায় চতুর্থ দিন। ইমরুল কায়েসকে নিয়ে ওপেন করতে নেমে খুব শুরুটাও ভাল ছিল তামিমের। আট বল মোকাবিলায় তামিম তুলে নেন কাঙ্ক্ষিত ৭ রান। অবশ্য মারকুটে ব্যাটিংয়ে তামিম খেসারতও দেন অল্পতেই। স্টাম্পিং হয়ে তামিম ইকবাল সাজঘরে ফেরেন ব্যক্তিগত ১৯ রানেই। গতকাল হাবিবুল বাশার বলেন, ‘আমি প্রথমেই তাকে (তামিম) অভিননন্দ জানাবো। হ্যাঁ, এটি সত্যি রেকর্ডটা ভাঙতে অনেকটাই সময় লেগে গেল। তবে আশা করি সে আরও অনেক অনেক  রান করবে।’ দেশী-বিদেশী সংবাদমাধ্যমে এর আগে বাশার বলেন, তামিম ইকবালের কাছে তিনি টেস্টে ১০ হাজার রান প্রত্যাশা করেন। জাতীয় দলের হয়ে হাবিবুল বাশার ২০০০ সালে খেলেছেন দেশের প্রথম টেস্ট। এরপর ২০০৮ সাল পর্যন্ত ৮ বছরে ৫০টি টেস্ট ম্যাচ খেলে করেছেন ৩০২৬ রান। ঠিক সেই বছরই টেস্ট অভিষেক হয় তামিম ইকবালের। এরপর ৭টি বছর কেটে গেছে। কিন্তু টেস্টে ৩ হাজার রানের ল্যান্ডমার্ক পার করতে পারেনি বাংলাদেশের আর কোন ব্যাটসম্যান। ক্যারিয়ারে ৪০ টেস্টে তামিম ইকবালের সংগ্রহ ৩০৩৯ রান। তামিম ইকবালের কাছে টেস্টে ১০ হাজার রানের প্রত্যাশা কতটা বাস্তবসম্মত?  নানা  ইনজুরিতে তামিম প্রায়ই থাকছেন মাঠের বাইরে। বাশার বলেন, ‘আসলে আমিতো আশা করতেই পারি। কারণ ওর সামনে লম্বা ক্যারিয়ার পড়ে আছে। তবে তাকে সে জন্য ফিট থাকতে হবে।’ গতকাল দিনশেষে প্রসঙ্গটি ওঠে তামিম ইকবালের সামনেও। তবে তামিম বলেন, এমন স্বপ্ন দেখতে হলে বেশি বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার সুযোগ পেতে হবে। যা আপাতত বাংলাদেশ পাচ্ছে না। তামিম বলেন, আমরা টেস্ট খেলার সুযোগ কমই পাই। সত্যি কথা হলো, খেলার সুযোগ না বাড়লে আমার কাছে টেস্টের ৫০০০ রানই দূরের বিষয়। বাশার ভাই ৩০০০ রান করেছেন ৫০ ম্যাচে। আমি পেলাম ৪০ ম্যাচে। মুমিনুল হক যেমন দেখাচ্ছে তাতে আশা করা যায় ৩০০০ রান পূর্ণ করবে আরও ১০ ম্যাচ কম খেলে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:৫৫ অপরাহ্ণ | জুন ১৪, ২০১৫