| রাত ১০:৪৫ - বুধবার - ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

স্কুল ঘরে ভাইকে বেঁধে বোনকে গণধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক | ১২ জুন ২০১৫, শুক্রবার,

যশোরের শার্শায় স্কুল ঘরে ভাইকে বেঁধে বোনকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আজগার আলী নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। শার্শা থানার ওসি এনামুল হক জানান, নির্যাতিত ভাই বোনের বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জে। তারা ব্যবসায়িক কারনে গত বুধবার ভোরে যশোরের শার্শার সীমান্তবর্তী রুদ্রপুর গ্রামের আজগারের বাড়ি বেড়াতে যান। সূত্র বলছে, তারা ল্যাগেজ পার্টির ব্যবসা করতো। এই ব্যবসায়িক কারনে আজগার তাদের কাছে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা পেতেন। কিন্তু দীর্ঘ দিন তারা ওই টাকা দেওয়ার নামে টালবাহানা করছিল। সুযোগ বুঝে আজগার দুই ভাই বোনকে নতুন করে ব্যবসার প্রস্তাব দিয়ে রুদ্রপুর গ্রামে নিয়ে আসেন। পরে আজগার ও তার অপর দুই সহযোগী দুই ভাই বোনকে তাদের বাড়িতে রেখে আদর আপ্যায়ন করে। বুধবার দিনগত রাতে ব্যবসার কথা বলে আজগার তাদের দুই ভাই বোনকে বাড়ির বাইরে নিয়ে যায়। পরে রুদ্রপুর সীমান্ত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একটি স্কুল ঘরের পিলারের সঙ্গে পিট মোড়া দিয়ে বেঁধে মুখে কষ্টটেপ লাগিয়ে ভাইয়ের সামনেই বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে আজগার ও তার অপর দুই সহযোগী। এভাবে রাতভর ধর্ষণের পর তাদেরকে হত্যার ভয় দেখিয়ে বিকাশের মাধ্যমে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা আদায় করেন। পরে গতকাল বেলা ১২ টার দিকে তাদের দুই ভাই বোনকে মোটর সাইকেল যোগে শার্শার জামতলা বাজারে নিয়ে একটি বাসে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ভাই বোনের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন আসলে আজগারের সহযোগীরা পালিয়ে যায়। জনতা ফেনসিডিল ব্যবসায়ী জিহাদ আলী গাজির ছেলে আজগারকে আটক করে। পরে খবর পেয়ে শার্শা থানার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আজগারকে আটক করে।
ওসি ইনামুল হক বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে পুলিশ হেফাজতে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে ধর্ষিতার ভাই শাহ আলম বাদী হয়ে শার্শা থানায় মামলা করেছেন। মামলার প্রধান আসামি আজহগারকে আটক করা হয়েছে। বাকি দুই আসামিকে আটকের চেষ্টা চলছে।
উল্লেখ্য এর আগেও ২০১৪ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর শার্শার একই এলাকার কুঁচেমোড়া এলাকায় এক ভাইকে গাছের সাথে বেঁধে তার বোনকে গণধর্ষর করে স্থানীয় একটি সন্ত্রাসী চক্র। সেই ঘটনায় মামলা হলেও আজ পর্যন্ত কোন আসামিকে আটক করতে পারেনি শার্শা থানা পুলিশ।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:১৭ অপরাহ্ণ | জুন ১২, ২০১৫