| দুপুর ১২:২৮ - শনিবার - ১৩ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

নেত্রকোনায় হোটেল থেকে ৪ তরুণ-তরুণী আটক, ৮ ঘন্টা পর মুক্ত

নেত্রকোনা প্রতিনিধি :১০ জুন, বুধবার, 

নেত্রকোনা জেলা শহরের আবাসিক হোটেল কক্ষ থেকে পুলিশের হাতে আটক চার তরুণ-তরুণীকে অবশেষে ৮ ঘন্টা পর অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। আধুনিকতার নামে তরুণ-তরুণীদের ধর্মীয় মূল্যবোধ, সামাজিক অবক্ষয় ও নৈতিক স্খলনে সচেতন অভিভাবকদের মাঝে চরম উদ্বেগ-উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে।
এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, নেত্রকোনা সরকারি কলেজের দুই ছাত্রী গত মঙ্গলবার ক্লাশের কথা বলে বাসা থেকে বেরিয়ে দুই তরুণকে নিয়ে স্থানীয় আল-নূর আবাসিক হোটেলের রুম ভাড়া নিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ দুপুরে হোটেলে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত থাকাবস্থায় চার তরুণ-তরুণীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। আটক দুই ছাত্রীর বাসা পৌর এলাকার নাগড়ায়। আটক দুই তরুণের একজনের বাড়ি কলমাকান্দা ও অপর জনের বাড়ী কেন্দুয়া উপজেলায়। তরুণ তরুণী আটকের সংবাদ পেয়ে অসংখ্য কৌতুহলী সাধারন মানুষ থানায় ভিড় জমায়। থানায় আটক তরুণ তরুণীদের অভিভাবক ও আত্মীয় স্বজনগণ থানায় ওসি’র কক্ষে দফায় দফায় বৈঠক করে অবশেষে পুলিশকে ম্যানেজ করে রাত ৯ টার দিকে আটককৃতদের ছাড়িয়ে নিতে সক্ষম হন। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি মাছুদুল আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, হোটেলে আটক চার তরুণ-তরুণীকে তাদের অভিভাবকদের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন অভিভাবক এ ব্যাপারে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করে বলেন, কিছু কিছু অভিভাবকদের অতি আধুনিক মন মানসিকতা, উদাসীনতা এবং স্থানীয় প্রশাসনের দায়িত্ব অবহেলার কারণে তরুণ তরুণীদের মাঝে ধর্মীয় মূল্যবোধ, সামাজিক অবক্ষয় ও নৈতিক স্খলন শুরু হয়েছে। এক শ্রেণীর হোটেল মালিকের অনৈতিক অর্থলিপ্সুর কারণে জেলা শহরের একাধিক আবাসিক হোটেল এখন মিনি পতিতালয়ে পরিণত হয়েছে। পুলিশ নিয়মিত হোটেলে অভিযান পরিচালনা না করায় ছাত্র-ছাত্রীরা আশঙ্কাজনকভাবে এই অনৈতিক কার্যকলাপে জড়িয়ে পড়ছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ | জুন ১০, ২০১৫