| সন্ধ্যা ৬:১৯ - শনিবার - ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

স্যামসাং বাংলাদেশের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হচ্ছেন মুশফিক

দক্ষিণ কোরিয়া ভিত্তিক আন্তর্জাতিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান স্যামসাং বাংলাদেশের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হচ্ছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২৬ মে এক দশক পূরণের একদিন পর তিনি আরও একটি অধ্যায়ে নাম লেখাচ্ছেন। এর আগে ২০১৪ সালের ২৪ মে তিনি গ্রামীনফোনের ব্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হন। এরপর গোল্ডমার্ক ফুডস লিমিটেডেরও ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর নিযুক্ত হন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আজ বুধবার রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে এক আনুষ্ঠানিক আয়োজনে নিজেদের স্থানীয় ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরের নাম ঘোষণা করবে স্যামসাং বাংলাদেশ। এ ব্যাপারে জানতে স্যামসাং বাংলাদেশ-এর ঢাকা অফিসে যোগাযোগ করে দায়িত্বশীল কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে ফোর থট পিআরের আমন্ত্রণপত্র পেয়ে তাদের সাথে এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, প্রোগ্রামে আসেন সব বিস্তারিত জানতে পারবেন।

প্রসঙ্গত, ২০০৫ সালের ২৬ মে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল ১৮ বছর বয়সী এক তরুণের। অনেকেই সেটাকে দেখেছিলেন নির্বাচকদের ‘জুয়া’ হিসেবে। কিন্তু পরবর্তী ১০ বছরে সেই তরুণ নিজেকে প্রমাণ করেছেন জাতীয় দলের অপরিহার্য সদস্য হিসেবে। তাঁর ব্যাট হয়ে উঠেছে নির্ভরতার প্রতীক। তিনি মুশফিকুর রহিম। মঙ্গলবার মুশফিক পূর্ণ করলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের এক দশক।

২০০৫ সালে ক্রিকেট-তীর্থ লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল মুশফিকের। সেই ম্যাচে অভিষেক হয়েছিল শাহাদাত হোসেনেরও। ১০ বছর পর এই দুজনের পারফরম্যান্স বিচার করলেই বোঝা যায় মুশফিক কত সফলতার সঙ্গে পার করলেন ১০টি বছর। গত ১০ বছরে শাহাদাত খেলতে পেরেছেন ৩৮ টেস্ট ও ৫১টি ওয়ানডে। সেই জায়গায় মুশফিক খেলেছেন ৪৫ টেস্ট ও ১৪৯টি ওয়ানডে।

১৯ বছর বয়স হওয়ার আগে অভিষেক হয়েছে এমন খেলোয়াড়দের মধ্যে মুশফিকই সবচেয়ে সফলভাবে পার করেছেন প্রথম ১০টি বছর। অভিষেকটা অবশ্য ভালো হয়নি মুশফিকের। দুই ইনিংসে ১৯ আর তিন রান করেছিলেন তিনি। বাংলাদেশ ম্যাচটা হেরেছিল এক ইনিংস ও ২৬১ রানে। তবে শুরুর হতাশা পেছনে ফেলে আজ তিনি স্বমহিমায় উজ্জ্বল। ৪৫ টেস্টে তিনটি শতক ও ১৪টি অর্ধশতকসহ ৩২.৩৪ গড়ে দুই হাজার ২৫৫৫ রান করেছেন মুশফিক। ২০১৩ সালে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দ্বিশতক করার কৃতিত্বও তাঁর। টেস্টের মতো ওয়ানডেতেও মুশফিক সফল। ১৪৯ ওয়ানডে খেলে তিনটি শতক ও ২২টি অর্ধশতকসহ ৩১.৩৭ গড়ে তিন হাজার ৬৭১ রান সেই সাক্ষ্যই দিচ্ছে। পাশাপাশি টেস্টে ৮৭ আর ওয়ানডেতে ১৫২টা ডিসমিসাল তো আছেই।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:০০ পূর্বাহ্ণ | মে ২৭, ২০১৫