| রাত ৮:৫১ - শুক্রবার - ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১৩ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

কিশোরগঞ্জে হোতাসহ চোরচক্রের ৭ সদস্য আটক

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি ●২৬ মে ২০১৫, মঙ্গলবার:
গ্রীল কেটে বাসাবাড়িতে চুরির দুর্ধর্ষ হোতা সানাউলস্নাহ (২০)। কেবল বাসাবাড়িতে চুরিই নয় বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের তার, ট্রান্সফরমার কিংবা মিটার চুরিতেও সানাউলস্নাহ চক্রের রয়েছে সমান দড়্গতা। দুর্ধর্ষ এই চোরচক্র যাত্রী সেজে অটোরিকশা, বাস এবং বিভিন্ন গণপরিবহন থেকে ছিনতাই করে মোবাইলসহ যাত্রীদের মূল্যবান মালামাল। তাদের চুরি থেকে বাদ যায় না বাইসাইকেলও। চক্রের সদস্যদের সঙ্গে যোগসাজশ রয়েছে নির্দিষ্ট কিছু ভাঙ্গারি ও বাইসাইকেল ব্যবসায়ীর। ব্যবসার আড়ালে তারা বিক্রি করে চোরাই মালামাল। সোমবার সন্ধ্যায় র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল হোতা সানাউলস্নাহকে আটক করে। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে চক্রের বাকি ৬ সদস্যকেও বিপুল পরিমাণ চোরাই মালামাল ও দেশীয় অস্ত্রসহ আটক করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাদেরকে হাজির করা হয় সাংবাদিকদের সামনে। এ সময় কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের উপ-পরিচালক মেজর মো. রিয়াদুল ইসলাম সানাউলস্নাহ চক্রের অপকর্মের এ বিবরণ দেন।
মেজর মো. রিয়াদুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি জেলা শহরের পুরাতন জজ কোর্ট এলাকার একটি বহুতল বাসার তৃতীয় তলায় গ্রীল কেটে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটে। চোরেরা ওই বাসা থেকে মোবাইল, ক্যামেরাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করে নিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে র‌্যাব চোরচক্রকে গ্রেফতারের জন্য মাঠে নামে। একপর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় রেলস্টেশন এলাকা থেকে চক্রের হোতা সানাউলস্নাহকে আটক করে র‌্যাব। সানাউলস্নাহ শহরের পূর্ব তারাপাশা এলাকার ইদ্রিছ আলীর ছেলে। র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে ওই বাসায় চুরির সঙ্গে তার সরাসরি সম্পৃক্ততার কথা জানায় এবং সহযোগীদের নাম-ঠিকানা দেয়। এ সময় সানাউলস্নাহ জানায়, সে এবং তার চক্রের সদস্যদের চোরাই মালামাল শহরের মোরগ মহালের ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী আলাউদ্দিনের নিকট বিক্রি করে। এ প্রেড়্গিতে আলাউদ্দিনের ভাঙ্গারি দোকানে অভিযান পরিচালনা করে সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই মিটার, তার, বৈদ্যুতিক কয়েল ও একটি বসত্মাভর্তি মোবাইল হ্যান্ডসেটসহ বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল উদ্ধার করে। এ সময় সেখানে চোরাই মাল বিক্রি করতে আসা প্রতারণা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত ও গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি ফখরম্নল আলম (৪২) এবং ভাঙ্গারি ব্যবসায়ী আলাউদ্দিন (৪৫) কে আটক করে র‌্যাব। হোতা সানাউলস্নাহর দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের অপর একটি আভিযানিক দল পুলেরঘাট বাজারের একতা সাইকেল স্টোরে অভিযান চালিয়ে ৪টি চোরাই সাইকেলসহ দোকান মালিক আল আমিন (২২) কে হাতেনাতে আটক করে। এছাড়া শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে চক্রের বাকি তিন সদস্য রাজিব ওরফে বাপ্পী (২০), খলিল উলস্নাহ (২০) ও রাসেল মিয়া (২০) কে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে চক্রের সদস্যরা কয়েক বছর ধরে নিয়মিত এসব দুর্ধর্ষ চুরি করে আসছে বলে জানায়। এই চোরচক্রটিকে গ্রেফতারের ফলে কিশোরগঞ্জ শহরসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় চুরি, ছিনতাই অনেকাংশেই হ্রাস পাবে বলে মেজর রিয়াদ আশা প্রকাশ করেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৩৫ অপরাহ্ণ | মে ২৬, ২০১৫