| সন্ধ্যা ৬:৫৮ - শনিবার - ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৮ই জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি

ফলোআপ গফরগাঁওয়ে জোড়া খুনের ঘটনায় ১০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের

গফরগাঁও প্রতিনিধি ঃ  ২৩ মে ২০১৫, শনিবার,
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের পল্লীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে জোড়া খুনের ঘটনায় ১০ জনকে আসামী করে নিহত সামাদ খানের ভাই মোশারফ খান বাদি হয়ে শুক্রবার রাতেই লিয়াকত মীর, সজল মীর, বাবেল মীর, রনি সরকার ও মোশারফকে আসামী করে উপজেলার পাগলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এছাড়াও ওই মামলায় অজ্ঞাত আরো ৫ জনকে আসামী করা হয়। এদিকে ময়না তদন্ত শেষে নিহত ছামাদ খান ও কালাম খানের লাশ গতকাল শনিবার বিকেলে জানাযা শেষে শেউলি গ্রামের পারিবারিক গোরস’ানে দাফন করা হয়। যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এলাকায় এখনো অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
প্রসঙ্গত উপজেলার উসি’ ইউনিয়নের শেউলী গ্রামের মীর পরিবারের সজল মীরের জমির উপর দিয়ে মসজিদের যাওয়ার রাস্তা প্রশস্থ করতে প্রতিবেশী খান গোষ্ঠির লোকজন দাবী জানিয়ে আসছিল। এতে মীর গোষ্ঠির লোকজন ওই জমি ক্রয় করে রাস্তা প্রশস্থ করার কথা বলে। এ নিয়ে দুই গোষ্ঠির মধ্যে দ্বন্দ্ব-কথা কাটাকাটি হয়। গত বৃহস্পতিবার বিকালে খান গোষ্ঠির লোকজন জোর করে রাস্তার পাশের সীমানা খুটি উপড়ে ফেলে। পরে মীর গোষ্ঠির লোকজন খান গোষ্ঠির তসলিম খান ও হেলিম খানকে মারধর করে। মারধরের ঘটনায় গত শুক্রবার সকালে খান ও মীর গোষ্ঠির লোকজন সশস্ত্র অবস্থায় সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় সামাদ খান নামে একজন ঘটনাস’লেই নিহত হয়। পরে মূমূর্ষু অবস্থায় কালাম খানকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনিও মারা যান।
উপজেলার পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম খান বলেন, এ ঘটনায় আসল হত্যাকারীসহ দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নিহত পরিবারের পক্ষ থেকে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো ৫ জন আসামী করে একটি হত্যা মামলা হয়েছে। আসামী গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৫:১৪ অপরাহ্ণ | মে ২৩, ২০১৫