| সকাল ৬:৫১ - শুক্রবার - ২৫শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৩০শে রবিউস সানি, ১৪৪৪ হিজরি

ঈশ্বরগঞ্জে কর্মসৃজন কর্মসূচিতে ব্যাপক লুটপাট ও অনিয়মের অভিযোগ

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি-২০ মে ২০১৫, বুধবার,
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে কর্মসৃজন কর্মসূচি প্রকল্পে ব্যাপক লুটপাট ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। বেশির ভাগ প্রকল্পে ৫০ শতাংশেরও বেশি শ্রমিক ভূয়া ও সমাজের গুরম্নত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম থাকায় প্রকল্পগুলোতে ৩০ শতাংশ শ্রমিকও উপস্থিত থাকছেন না। উপজেলার ১১ ইউনিয়নের কর্মসৃজন কর্মসূচির ৯৫ প্রকল্পে চার হাজার ৩৯০ জন শ্রমিক কাজ করার কথা থাকলেও প্রকল্পগুলোতে দৈনিক দুই হাজার শ্রমিকও কাজ করছেন না। এতে কর্মসূিচর আসল উদ্দেশ্য ব্যাহত হচ্ছে।
বুধবার সরেজমিন বড়হিত ইউনিয়নের ৫ টি প্রকল্প ঘুরে দেখা যায়, পিআইও অফিসের তালিকায় কাগজে কলমে শতভাগ শ্রমিক থাকলেও প্রকল্পস্থানে ৩০ শতাংশও উপসি’ত নেই। উল্লেখিত প্রকল্পগুলো হলো বড়হিত ইউনিয়নের উচাখিলা পাকা রাস্তার পরদানী বাড়ি হয়ে দত্তের ডাংগ্রী পর্যনত্ম ও কাঁঠালা বাজার থেকে সুকুমারের বাড়ি পর্যনত্ম রাস্তা মেরামত। ৯৪ নং প্রকল্পে ৬১ জন শ্রমিক উপসি’ত থাকার কথা থাকলেও আছে ২৬জন। একই ইউনিয়নের ঈশ্বরগঞ্জ পাকা রাসত্মা থেকে পাড়াডাংগ্রী মসজিদ হয়ে নূরম্নল হক ফকিরের বাড়ি পর্যনত্ম রাস্তা মেরামত। ৯২ নং প্রকল্পে ৪৫ জনের মধ্যে উপসি’ত আছে ২১জন শ্রমিক। বড়ডাংগ্রী সবকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে আবাল পুলিশের বাড়ির মসজিদ প পর্যন্ত রাস্তা ও উচাখিলা পাকা রাস্তা থেকে লক্ষীপুর মসজিদ পর্যন্ত এবং কপাটি বাজার মসজিদ থেকে আব্দুলের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা হয়ে নারায়নপুর মোতালেব এর বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা মেরামত। ৯৫ নং প্রকল্পে ৫১ জন শ্রমিকের মধ্যে পাওয়া যায় ৩২জনকে। একই ইউনিয়নের আরো দুইটি প্রকল্পে কোন লোক দেখা যায়নি। ওই ইউনিয়নে মোট ৩০ লাখ ৪০ হাজার টাকার কর্মসৃজন কর্মসূচিতে ব্যয় ধরা হয়েছে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রকল্পে অনুপস্থিত শ্রমিকেরা ভূয়া ও ভিআইপি শ্রমিক হিসেবে পরিচিত। তাই তারা কোনো দিন প্রকল্প স্থানে উপসি’ত থাকেন না। ভূয়া শ্রমিকদের নামে ব্যাংকে ভূয়া হিসাব খুলে তাদের বরাদ্দের টাকা উত্তোলন করে নেন চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা। আর ভিআইপি শ্রমিকদের নামের টাকা যাচ্ছে সরকারি কর্মকর্তা ও ট্যাগ অফিসারদের পকেটে।
বড়হিত ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন বলেন, কাজের বিষয়ে সংশিস্নষ্ট প্রকল্প সভাপতি ও উপজেলা প্রকল্প বাসত্মবায়ন কর্মকর্তা ভালো বলতে পারবেন।
উপজেলা প্রকল্প বাসত্মাবায়ন কর্মকর্তা আব্দুস সোবান বলেন, বেশ কয়েকটি প্রকল্প আমি ঘুরে দেখে এসেছি। যে সব প্রকল্পে অভিযোগ উঠবে সেসব প্রকল্প যাচাই করে দেখা হবে। ##

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:২৫ অপরাহ্ণ | মে ২০, ২০১৫