| রাত ২:১৪ - শুক্রবার - ২৫শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৩০শে রবিউস সানি, ১৪৪৪ হিজরি

শেরপুরের শ্রীবরদীর অর্ধশতাধিক স্পটে হাত বাড়ালেই মিলছে মাদক

শ্রীবরদী প্রতিনিধিঃ  শেরপুরের শ্রীবরদী পৌর শহর সহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে নেশার জুয়ারে ভাসছে যুব সমাজ। মাদক সেবন ও বেচাকেনা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে উপজেলায়। প্রতিনিয়ত গোপনে উপজেলার অর্ধ শতাধিক স্পটে কয়েক লক্ষ টাকার মরণ নেশা মাদক বেচাকেনা হচ্ছে। র‌্যাব, পুলিশ, ডিবি পুলিশ ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মাদক বিরোধী অভিযানেও অদৃশ্য কারণে থেমে নেই মাদকের রমরমা ব্যবসা। উপজেলার চিহ্নিত মাদক স্পটগুলোতে হাত বাড়ালেই মিলছে ইয়াবা, ভারতীয় বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ, হেরোইন, ফেনসিডিল, চুলাই মদসহ বিভিন্ন মাদক সামগ্রী। একাধিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পৌর সদর, গারো পাহাড়ি অঞ্চলের সীমান-বর্তী কয়েকটি গ্রাম এবং প্রত্যন্ত অঞ্চলের কয়েকটি স্থানে অতি গোপনে দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসা চলে আসছে। স্থানীয় প্রভাবশালীদের ছত্র ছায়ায় পেশাদার মাদক ব্যবসায়ীরা অভিনব কৌশলে মাদক ব্যবসা করে আসছে অবাধে। পৌর শহরের খামারিয়াপাড়া, মুন্সীপাড়া, কলেজ গেট, উত্তর শ্রীবরদী, কলাকান্দা, সাতানী শ্রীবরদী, উত্তর বাজার, নয়াপাড়া ও তাতিহাটী, সিংগাবরুনা ইউনিয়নের মাটিফাটা, সিংগাবরুনা, ঝুলগাঁও, চান্দাপাড়া, বাবেলাকোনা, জলঙ্গা মাধবপুর, বড়ই কুচি, চুকচুকি, মেঘাদল, কাকিলাকুড়া খঞ্চেপাড়া, গড়খোলা, কুতুবপুর, চৌরাস্তা বাজার, রাণীশিমুল ইউনিয়নের বিলভরট, ভায়াডাঙ্গা বাজার, রাণীশিমুল, খাড়ামুড়া, রাঙ্গাজান, বালিজুরী, হালুহাটি, তাতিহাটী ইউনিয়নের বটতলা বাজার, শালমারা বাজার, পোড়াগর, ভটপুর বাজার, গোশাইপুর ইউনিয়নের ধাতুয়া, ভারেরা, বালিয়াচন্ডি, শংকরঘোষ, শ্রীবরদী সদর ইউনিয়নের দহেরপাড় বাজার, মামদামারি, ধামাহাটা বাজার, খড়িয়াকাজিরচর ইউনিয়নের লঙ্গরপাড়া, উত্তর খড়িয়া, বীরবান্দা, কুড়িকাহনিয়া ইউনিয়নের কুরুয়া বাজার, কুরুয়া ভাটিপাড়া, কুড়িকাহনিয়া, ভেলুয়া ইউনিয়নের ঝগড়ারচর সহ উপজেলার অর্ধশতাধিক স্পটে, পেশাদার মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে আসছে। বিগত দিনে শ্রীবরদী থেকে মাদক নির্মুলে কাজ করে গেছেন তৎকালীন থানার ওসি মুস্তাসিনুর রহমান। যাকে শ্রীবরদী বাসী আজও শ্রদ্ধার চোখে স্মরণ করে। তিনি মাদক মুক্ত শ্রীবরদী গড়ার প্রত্যয়ে শত বাঁধাবিপত্তির বেড়াজাল ভেঙ্গে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে শেরপুর জেলা পুলিশের ভাবমুর্তি উজ্জ্বল করে। কিন্তু তিনি অন্যত্র বদলী হয়ে যাওয়ার পর শ্রীবরদীতে থানা পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান অনেকটাই থমকে যায়। সূত্রে জানায়, মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে কতিপয় প্রভাবশালীদের বিশেষ সম্পর্ক থাকায় মাঝে মাঝে মাদক বিরোধী অভিযানে গুটিকয় খুচরা মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করা হলেও রহস্য জনক কারণে শ্রীবরদী উপজেলার মাদক ব্যবসার গডফাদাররা বারবার ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়ে গেছে। আবার অনেক সময় মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করলেও রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের জোর তদবিরের কারণে বিপাকে পড়তে হয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে। শ্রীবরদী উপজেলার একাধিক স্থানে মাদকের রমরমা বেচাকেনা হওয়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে সচেতন অভিভাবক মহল। এ প্রসঙ্গে শেরপুর জেলা মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক তারেক মাহমুদের দৃষ্টি আকর্ষন করা হলে তিনি বলেন, এ মাসের প্রথম সপ্তাহেই আমরা শ্রীবরদীতে মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে তিনজনেক ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি। শ্রীবরদীর সচেতন মহল মাদক মুক্ত শ্রীবরদী উপজেলা গড়ার প্রত্যয়ে শেরপুরের পুলিশ প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ২:৫৩ অপরাহ্ণ | মে ১৬, ২০১৫