| দুপুর ২:১০ - শুক্রবার - ১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ২০শে মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

ময়মনসিংহে কাঁচা আম কেমিক্যাল দিয়ে পাকিয়ে বিক্রি

লোক লোকান্তরঃ  ময়মনসিংহ নগরীর বিভিন্ন ফলের দোকানে কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো আম বিক্রি’র দায়ে ফল দোকানীদের জরিমানা ও অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

 

আমের মৌসুম শুরুর আগে একটি অসাধু মহল অপরিপক্ক আম সংগ্রহ করে এবং কেমিক্যাল মিশিয়ে আম পাকায়। আর অনৈতিক লাভের আশায় এসব আম দেশ ব্যাপী বাজারজাত করে যা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।

 

নগরীর বিভিন্ন ফলের দোকানে কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো কাঁচা আম বিক্রি হচ্ছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান এর নির্দেশে  এসিল্যান্ড এম. সাজ্জাদুল হাসান , উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমান বিভিন্ন ফলের দোকানে অভিযান পরিচালনা করেন।

 

রবিবার বিকালে এ অভিযান পরিচালনায় বিভিন্ন ফলের দোকানীদের মোট ৭ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

 

 

ম্যাজিস্ট্রেট জানান, ময়মনসিংহে বিভিন্ন মানুষের অভিযোগের উপর ভিত্তি করে জেলা প্রশাসক এর নির্দেশনায় আমরা বিভিন্ন ফলের দোকানে এ অভিযান করি এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে ব্যবসায়ীদের কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করা হয় । রমজান মাসব্যাপী আমাদের এই অভিযান চলবে।

 

 

আরও পড়ুন –  কীভাবে রাসায়নিক দিয়ে পাকা আম চিহ্নিত করবেন…

 

১) ফলের চেহারা হবে উজ্জ্বল ও আকর্ষণীয়।

২) কেমিক্যাল দিয়ে পাকানো আমের সবদিকটাই সমানভাবে পাকবে কিন্তু গাছ পাকা ফলের সবদিক কখনোই সমানভাবে পাকে না।

৩) রাসায়নিক দিয়ে পাকানো ফলে স্বাভাবিক পাকা ফলের মতো মিষ্টি গন্ধ থাকবে না।

৪) প্রাকৃতিকভাবে পাকা ফলের চামড়ার ওপর এক ফোঁটা আয়োডিন দিলে তা গাঢ় নীল অথবা কালো বর্ণের হয়ে যাবে। কিন্তু ক্যামিকেল দ্বারা পাকানো ফলে আয়োডিনের রং অপরিবর্তিত থাকে।

 

সর্বশেষ আপডেটঃ ৯:৩৫ অপরাহ্ণ | মে ১০, ২০২০