| রাত ১:০৫ - শুক্রবার - ২৬শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ১১ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৯শে মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

শ্রীবরদীতে শিশু ধর্ষণের ঘটনায় ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

শ্রীবরদী প্রতিনিধিঃ  শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার রুপারপাড়া গ্রামে ৮ বছর বয়সী ১ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় অবশেষে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে শ্রীবরদী থানায় ৩ জনকে আসামী করে একটি ধর্ষণ মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। ধর্ষিতার মা হরবালা বাদী হয়ে ধর্ষক শাকিল মিয়া (১৩), তার বাবা হামিদুর রহমান ও মাকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, গত শুক্রবার বিকেলে রুপারপাড়া গ্রামের হামিদুর রহমানের ছেলে শাকিল (১৩) পার্শ্ববতী বাড়ির ঐ শিশুকে ডেকে নিয়ে ধানক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোড়পূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় শিশুটি অজ্ঞান হয়ে যায়। পরে শাকিল তাকে রেখেই পালিয়ে যায়। শেরপুর আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মোবারক হোসেন বলেন, ঐ ধর্ষিতা শিশুকে শুক্রবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে তার স্বজনরা হাসপাতালে ভর্তি করায়। ধর্ষণের কথা গোপন করে দূর্ঘটনা জনিত আঘাতের কথা বলে ভর্তি করা হলেও পরীক্ষা নিরীক্ষার পর ধর্ষণজনিত আঘাত ধরা পরে। ধর্ষণের পর প্রচুর রক্তপাত হয়েছে এবং আঘাতজনিত স্থানে কয়েকটি সেলাই দিতে হয়েছে। এই শিশুটি জেলা সদর হাসপাতালের গাইনী বিভাগের লেবার ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বর্তমানে শিশুটির অবস্থা ভালোর দিকে। ধর্ষিতার মা হরবালা বলেন, নিজেদের মধ্যে ঘটনা এ কথা বলে ধর্ষকের পরিবার ঘটনাটি আপোষ মিমাংসার কথা বলে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু মেয়েটির শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে শুক্রবার রাতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও দোষী ব্যক্তিদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশনের গ্লোবাল কো-অর্ডিনেটর ইকবাল চৌধুরী কায়েস। এ প্রসঙ্গে শ্রীবরদী থানার ওসি এস.আলম বলেন, মেয়েটির মায়ের দায়েরকৃত অভিযোগ আমলে নিয়ে অত্র থানায় একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। অচিরেই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হবে। এ মামলার এজাহারভূক্ত আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যহত রয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১:২৬ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ১৩, ২০১৬