| রাত ৮:২৯ - বুধবার - ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৭ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

শেরপুরে স্বাস্থ্য সহকারীদের সংবাদ সম্মেলন বিদ্যমান বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবি

শেরপুর প্রতিনিধি: ১২ মার্চ ২০১৬, শনিবার,
পদ আপ-গ্রেডেশনের মাধ্যমে বিদ্যমান বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে শেরপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত স্বাস্থ্য সহকারীরা। বাংলাদেশ হেলথ অ্যাসিসট্যান্ট অ্যাসোসিয়েশন, শেরপুর জেলা শাখার উদ্যোগে গত ১১ মার্চ শুক্রবার সকালে শহরের একটি হোটেলে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসাইন রাসেল।
লিখিত বক্তব্যে সাধারণ সম্পাদক হোসাইন রাসেল বলেন, স্বাস’্য ও পরিবার মন্ত্রণালয়ের অধীন দেশের বিভিন্ন উপজেলা স্বাস’্য কমপেৱক্সে স্বাস’্য সহকারী পদে ২০ হাজার ৮৮৬ জন কর্মরত আছেন। এদের মধ্যে শেরপুর জেলায় আছেন ১৭৪ জন। স্বাস’্য সহকারীরা ই.পি.আই, শিশু ও মাতৃমৃত্যু হ্রাস, যক্ষ্মা, ধনুষ্টংকার, ডায়রিয়া, ম্যালেরিয়াসহ সংক্রামক ও অসংক্রামক ব্যাধি নিয়ন্ত্রণ এবং অন্ধত্ব দূরীকরণে তৃণমূল পর্যায়ে সফল ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে আসছেন। কিন’ দীর্ঘদিন যাবত স্বাস্থ্য সহকারীরা টেকনিক্যাল পদমর্যাদার দাবি করে আসলেও সরকার তা বাস্তবায়ন না করায় পদমর্যাদাসহ চরম বেতন বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন।
হোসাইন রাসেল বলেন, ১৯৭৭ সালের জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী উচ্চ মাধ্যমিক পাশ স্বাস্থ্য সহকারীদের ১৬তম গ্রেডে মূল বেতন ছিল মাত্র তিন শ টাকা। স্বাস’্য সহকারীদের সমসাময়িক কৃষি বিভাগের বৱক সুপারভাইজার, প্রাণী সম্পদ বিভাগের ভেটেনারী ফিল্ড অ্যাসিসট্যান্ট ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিৰকদের পদবী ও বেতন স্কেল পরিবর্তনসহ টেকনিক্যাল মর্যাদা দেওয়া হলেও দীর্ঘদিন থেকে স্বাস্থ্য সহকারীরা চরমভাবে বৈতন বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। সরকারের অন্যান্য বিভাগে নিয়োগবিধির কোন প্রকার সংশোধনী ব্যতিত কর্মকর্তা-কর্মচারিদের গ্রেড আপ-গ্রেডেশন করে বেতন বৈষম্য দূর করা হলেও স্বাস্থ্য সহকারীদের বেলায় সরকার কিছু করছেন না। তাই নিয়োগবিধি সংশোধনপূর্বক স্বাস’্য সহকারীদের পদ আপ-গ্রেডেশনের মাধ্যমে বিদ্যমান বেতন বৈষম্য দূরীকরণ এবং বেতন স্কেলসহ টেকনিক্যাল মর্যাদা প্রদানের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তৰেপ কামনা করা হয়।
অন্যথায় আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে তাঁদের (স্বাস্থ্য সহকারী) দাবীসমূহ বাস্তবায়নে সরকারের পৰ থেকে সুস্পষ্ট ঘোষণা প্রদান না করা হলে আগামী ১ এপ্রিল জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কর্মবিরতিসহ বৃহত্তর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে বলে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন সংগঠনের শেরপুর জেলা শাখার সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান। এতে উপসি’ত ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার শরীফ হোসেনসহ বিভিন্ন উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:২৫ অপরাহ্ণ | মার্চ ১২, ২০১৬