| রাত ১:০৫ - বৃহস্পতিবার - ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

ঝিনাইগাতিতে গান্ধিগাঁও এগ্রিমল উদ্বোধন ও কম্পিউটার বিতরণ করলেন মি. মাইক রবসন

লোকলোকান্তর ডেস্কঃ  শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতি উপজেলার গান্ধিগাঁও ভিবিওতে (ভিলেজ বেজড্্ অর্গানাইজেশন) প্রকল্প কর্তৃক নির্মিত এগ্রিমল গত ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ খ্রিঃ উদ্বোধন এবং কম্পিউটার বিতরণ করলেন জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) এর বাংলাদেশ রিপ্রেজেন্টেটিভ মি. মাইক রবসন। তার সফর সঙ্গী হিসেবে ছিলেন তার স্ত্রী, দুই কন্যা ও এক পুত্র এবং এসিসট্যান্ট এফএও রিপ্রেজেন্টেটিভ (প্রোগ্রাম) ড. নূর আহমেদ খন্দকার।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ময়মনসিংহ অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ অমিতাভ দাস এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত গান্ধিগাঁও এগ্রিমল উদ্বোধন ও কম্পিউটার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতাদানকালে মাইক রবসন বলেন, ‘একজন কৃষকের পক্ষে তার উৎপাদিত পণ্য নিয়ে বাজার ব্যবস্থাপনা সম্ভব নয়। সমবায়ের মাধ্যমে পণ্যের বিক্রয় ব্যবস্থা করতে পারলে কৃষক তার সঠিক মূল্য পেতে পারে। খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্প আপনাদের সংগঠন তৈরি করতে সহায়তা ও এগ্রিমল নির্মাণের মাধ্যমে বাজার ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করেছে। আমি আশা করছি পরবর্তিতে আপনাদের চলার পথ সহজ হবে। এ ব্যপারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করবে।’
উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন এসিসট্যান্ট এফ এ ও রিপ্রেজেন্টেটিভ  (প্রোগ্রাম) ড. নূর আহমেদ খন্দকার; কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, শেরপুর জেলার উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. আশরাফ উদ্দিন, খাদ্য নিরাপত্তা ময়মনসিংহ- শেরপুর প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক কৃষিবিদ মো. মতিউজ্জামান, প্রকল্পের ন্যাশনাল প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর কাম টেকনিক্যাল এডভাইজার কৃষিবিদ ড. অনিল কুমার দাস। অনুষ্ঠানে ঝিনাইগাতি উপজেলার কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. কোরবান আলী; কৃষি তথ্য সার্ভিস ময়মনসিংহ আঞ্চলিক কার্যালয়ের কর্মকর্তাসহ প্রকল্প কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানের সভাপতি কৃষিবিদ অমিতাভ দাস তার বক্তব্যে আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, খাদ্য নিরাপত্তা ময়মনসিংহ- শেরপুর প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত গ্রাম ভিত্তিক সংগঠন গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশ ঘটাবে যা দারিদ্র দূরীকরণের মডেল হিসেবে কাজ করবে। এছাড়া প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত এগ্রিমল গ্রামীণ বাজার ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। তিনি মি. মাইক রবসন, তার পরিবারের সদস্যসহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতি উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম গান্ধিগাঁও এ আসার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
এর আগে মি. রবসন তার পরিবারের সদস্য সহ ঝিনাইগাতি উপজেলার রাংটিয়া উচ্চ বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন এবং কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রীর সাথে তাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সহ কৃষি পেশায় অংশগ্রহণে উৎসাহিত করার জন্য করণীয় সর্ম্পকে তাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন এবং পুষ্টি বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতে উৎসাহিত করতে পুষ্টি প্লেট বিতরণ করেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:২০ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৬