| দুপুর ১:৫৪ - রবিবার - ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

কিশোরগঞ্জে নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থাপনা বিষয়ে মতবিনিময়

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, শনিবার
নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থাপনা নিয়ে কিশোরগঞ্জে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন ও বিআরটিএ আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিভাগের কমিশনার মো. জিল্লার রহমান। জেলা প্রশাসক জিএসএম জাফরউলস্নাহ্‌র সভাপতিত্বে এতে অন্যদের মধ্যে বিআরটিএ’র যুগ্ম পরিচালক শাহনেওয়াজ তালুকদার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব হাসান শাহীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলি মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা বিআরটিএ’র সহকারি পরিচালক মো. নূরম্নজ্জামান, ডা. মো. মোহসীন, সহকারি কমিশনার ফারহানা আলী, জেলা পরিবহন মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি হেলালউদ্দিন মানিক, সাবেক সম্পাদক আলমগীর মুরাদ রেজা, সমিতির তত্ত্বাবধায় কমিটির আহবায়ক মানিক রঞ্জন দে, মোটরযান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি হাবিবুর রহমান, জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মোস্তফা কামাল প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
সভায় বিভাগীয় কমিশনার মো. জিল্লার রহমান বলেন, মহাসড়কে ত্রিহুইলার বন্ধ হয়েছে। রাসত্মার পাশে অবৈধ বাজারসহ অবৈধ স’াপনা উচ্ছেদসহ আরো বহুবিধ পদক্ষেপ নেয়া দরকার। তবে এক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধিরা অনেক কিছু করতে পারেন, যা সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে আমরা পারি না। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে ৬ মাস প্রশাসক ছিলাম। কিন’ আনিসুল হক মেয়র হবার পর তিনি তেজগাঁ ট্রাকস্ট্যান্ড উচ্ছেদ করতে পেরেছেন, কিন্ত আমি পারিনি। তিনি বলেন, চালকদের কারণে সড়ক দুর্ঘটনা খুব কম হয়। যাত্রী, পথচারি, ত্রম্নটিপূর্ণ রাসত্মাসহ অন্যান্য কারণেই দুর্ঘটনা বেশি হয়। এড়্গেত্রে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে শিক্ষা, ত্রম্নটিপূর্ণ রাস্তা নির্মাণ এবং আইনশৃংখলা বাহিনী-এই তিনের সমন্বয়েই দুর্ঘটনা শূণ্যের কোটায় নামিয়ে আনা সম্ভব হতে পারে বলে তিনি মনত্মব্য করেন।
সভায় বিআরটিএ’র যুগ্মপরিচালক শাহনেওয়াজ তালুকদার বলেন, স্কুলের পাঠ্য পুস্তকে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা দেয়ার জন্য ব্যবস’া নেয়া হচ্ছে। কোন গাড়ি নির্ধারিত গতি অতিক্রম করছে কিনা, তা ধরার জন্য অনেক জায়গায় স্পীডগান ব্যবহার হচ্ছে।
জেলা প্রশাসক জিএসএম জাফরউলস্নাহ্‌ বলেন, আগামী একমাস পর কিশোরগঞ্জ শহরে যানজট নিরসনে ইজিবাইক নিয়ন্ত্রণ করা হবে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম জানান, কিছুদিনের মধ্যেই দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি উদ্ধারের জন্য বিদেশ থেকে কয়েকটি র‌্যাকার আমদানি করা হবে। এর মধ্যে প্রথমই একটি র‌্যাকার কিশোরগঞ্জের জন্য বরাদ্দ দেয়া হবে বলে তিনি জেনেছেন বলে উল্লেখ করেন।
এছাড়াও সভায় বিভিন্ন বক্তা টমটম, নসিমন, করিমন, মাত্রাতিরিক্ত ইজিবাইক ছাড়াও দুর্ঘটনার জন্য চালকদের চলন্ত গাড়িতে মোবাইল ফোন ব্যবহার করা, দ্রুত বাস চালানোর জন্য চালককে যাত্রীদের তাড়া দেওয়া, দীর্ঘ সময় গাড়ি চালানোসহ অনেকগুলো বিষয়কে কারণ হিসেবে উলেস্নখ করেন। এ সময় পরিবহন মালিক, শ্রমিক, সরকারি কর্মকর্তা, সংবাদকর্মীরা উপসি’ত ছিলেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:০৩ অপরাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৬