| রাত ৯:৫৪ - সোমবার - ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৩রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১০ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

গৌরীপুরে ট্রেনে ডাকাতি, আটক ২

সাজ্জাতুল ইসলাম সাজ্জাত, গৌরীপুর,১০জানুয়ারি ২০১৬ঃ   ময়মনসিংহ-মোহনগঞ্জগামী ২৬৩ আপ ট্রেনে ডাকাতি হয়েছে।  শনিবার দিবাগত রাত ১১ টার দিকে গৌরীপুরের শ্যামগঞ্জ স্টেশনের অদুরে চলন্ত ট্রেনে এ ঘটনা ঘটে। এসময় ডাকাত দলের হামলায় বেশ কয়েকজন নারী পুরুষ আহত হন। পরে গৌরীপুর স্টেশন এলাকায় স্থানীয়রা দুইজন ডাকাতকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। আটককৃত হলেন- বিসকার মৃত আ: হেকিমের ছেলে আ. সেলিম (৩০) ও গৌরীপুরের শালিহর গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে কাউসার (২৪)।

প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীরা জানান, নেত্রকোণার মোহনগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ময়মনসিংহগামী ট্রেনটি শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে প্রায় ৩০মিনিট যাত্রা বিরতি করে। এসময় কর্তব্যরত পুলিশ ময়মনসিংহগামী যাত্রীদের প্রথম কোচে ও গৌরীপুরের যাত্রীদের দ্বিতীয় কোচে উঠার নির্দেশ দিয়ে তিনি যাত্রীবিহীন তৃতীয় কোচে ওঠেন। ট্রেন ছাড়ার পরপরই লাইট বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে শ্যামগঞ্জ স্টেশনের আউটার সিগন্যাল পার হওয়ার পর প্রথম কোচে যাত্রীবেশে উঠা ডাকাতদলের সাতজন যাত্রীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাদের মালামাল লুটে নেয়। ডাকাতদের সাথে হুড়োহুড়িতে অস্ত্রাঘাতে এসময় বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হন। ট্রেনটি গৌরীপুর স্টেশনের আউটার সিগন্যালের সন্নিকটে ভালুকা এলাকায় এলে গতি কম থাকায় ডাকাত দলের সদস্যরা নেমে যায়। এরপর গৌরীপুর স্টেশনে ট্রেনটি এলে ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীরা ট্রেন অবরোধ করে কর্তব্যরত পুলিশকে ধাওয়া ও ট্রেনের কর্মকর্তারা জড়িত থাকার অভিযোগ এনে বিক্ষোভ মিছিল করে। ডাকাতরা ভালুকা এলাকায় নেমে যাওয়ায় স্থানীয়রা ওদের তাড়া করে আ. সেলিম ও কাউসার নামে দুজনকে আটক করে রেলওয়ে ফাঁড়ি পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন। যাত্রীদের বিক্ষোভ ও ডাকাতির ঘটনা স্বীকার করে গৌরীপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ নিরঞ্জন সরকার জানান, গ্রেফতারকৃত দুইজনকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:৫৮ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ১০, ২০১৬