| রাত ১২:৫৭ - রবিবার - ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১০ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

নান্দাইল পৌরসভা নির্বাচন সহোদরের লড়াই জয় :ধরে রাখতে তৎপর বিএনপি ইমেজ উদ্ধারে আওয়ামী লীগ

 

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি ঃ | ২৩ ডিসেম্বর ২০১৫, বুধবার,

প্রতীক বরাদ্দের পর ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌর সভার নির্বাচনে মেয়র, সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর ও সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সহ ৪৬ প্রার্থী জমজমাট প্রচারণা শুরু করেছে। কনকনে শীত উপেক্ষা করে সকাল হতে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে প্রচারণা। মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি কাউন্সিলর প্রার্থীরাও বসে নেই। স্থানীয়দের আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু এখন পৌরসভার নির্বাচন। পোস্টার, লিফলেটে ছেয়ে গেছে পৌর এলাকা। প্রতিদিন দুপুর থেকে চলছে মাইকে ডিজিটাল প্রচারণা। চায়ের স্টল, হোটেল ও রেস্টুরেন্টে এ নির্বাচন নিয়ে চলছে ভোটার ও সাধারন মানুষদের মধ্যে কথাবার্তা। নিয়মিত গণসংযোগ, উঠান বৈঠক ও কুশল বিনিময় করে ভোটারদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন তারা। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রথম
বারের মত এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচনের নতুন হাওয়া লেগেছে প্রচারণায়। নান্দাইল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ৯ জন এবং সাধারন কাউন্সিলর পদে ৩২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পৌরসভা নির্বাচনে জয়ের ধারা ধরে রাখতে বিএনপি তৎপর থাকলেও আওয়ামী লীগ ইমেজ পুনরুদ্ধারে মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছে।
নৌকা প্রতীক নিয়ে মাঠে নেমেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মোঃ রফিক উদ্দিন ভুঞা , বিএনপি মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র এ.এফ.এম আজিজুল ইসলাম পিকুল (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির শফিকুজ্জামান জুয়েল (লাঙ্গল), জাসদের প্রার্থী আমরম্ন মিয়া (মশাল) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ শফিকুল ইসলাম (মোবাইল ফোন)। বিএনপি’র মেয়র প্রার্থীর আপন বড় ভাই। মেয়র প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনায় পিছিয়ে নেই নান্দাইল পৌর এলাকার সাধারন ভোটাররা। নানানভাবে অংক কষে মেলাচ্ছেন ভোটের হিসাব নিকাশ। কে হবেন নান্দাইলের পৌর পিতা ? মূলত নৌকা এবং ধানের শীষের মধ্যে দ্বিমুখী লড়াই হবে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে। পৌর নির্বাচনে প্রার্থীরা তরম্নন এবং নারী ভোটারদের দিকে ঝুকছেন। এবারের নির্বাচনে মেয়র, কাউন্সিলর প্রার্থীদের ভাগ্য নির্ধারন করবে তারাই। ভোটাররা বলছেন, এলাকার উন্নয়নে যিনি কাজ করবেন সে রকম প্রার্থীকেই তারা ভোট দিবেন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোঃ রফিকউদ্দিন ভূইঁয়া বলেন, যদি তিনি মেয়র নির্বাচিত হন তবে নান্দাইল পৌরসভাকে একটি আধুনিক মডেল পৌরসভা হিসাবে গড়ে তুলবেন। একটি পৌরভবন তৈরী করবেন তিনি। অন্যদিকে বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী আজিজুল ইসলাম পিকুল বলেন, বিগত ৫বছর আমি পৌরসভার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হয় ও ভোটাররা ভোট প্রয়োগ করতে পারে তাহলে তিনি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। পৌরসভার সকল ধরনের সমস্যার সমাধানের প্রতিশ্রম্নতি ব্যক্ত করেন তিনি। অপরদিকে জাতীয় পার্টির প্রার্থী জুয়েল ও জাসদ মনোনীত প্রার্থী আমরু মিয়ার প্রচারনা থাকলে ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলামের তেমন কোন প্রচারনা নেই। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল করিম ভূইঁয়া ও রির্টানিং অফিসার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শাহনূর আলম জানান, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা মোতাবেক যেকোন মূল্যেই পৌর নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ করবো। আচরন বিধি লংঘন করলে সংশ্লিষ্ট প্রার্র্থীর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং হবে। ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্টিত তৃতীয় শ্রেণীর এই পৌরসভায় ৯টি ওর্য়াডে মোট ভোটার সংখ্যা-২১ হাজার ৪৩৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১০হাজার ৬৮৫জন ও মহিলা ভোটার ১০ হাজার ৭৫০জন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:১৫ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৩, ২০১৫