| রাত ১২:৩২ - রবিবার - ২১শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৬ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

ময়মনসিংহ জেলা ও বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগের জন্য অর্ধ-শতাধিক পদ প্রত্যাশী জীবন বৃত্তান্ত জমা

 

স্টাফ রিপোর্টার, ১৬ অক্টোবর ২০১৫, শুক্রবার,
ময়মনসিংহ জেলা ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) শাখার ছাত্রলীগের জন্য অর্ধশতাধিক পদ-প্রত্যাশী জীবন বৃত্তান্ত জমা দিয়েছে। কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে চলছে জোর লবিং ।
সুযোগ্য নেতা নির্বাচন করাই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ‘ময়মনসিংহ জেলা ও বাকৃবি শাখা ছাত্রলীগ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ও ঐতিহ্যবাহী ইউনিট। মাদকমুক্ত, নেতৃত্বদানে গুণাবলী সম্পন্ন, মেধাবী ও নিয়মিত ছাত্রদের এ দুই ইউনিটের নেতৃত্বে আনা হবে। দলের জন্য যারা দুঃসময়ে কাজ করেছেন তাদেরকে মুল্যায়ন করা হবে, যাদের বিরুদ্ধে দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের কোন অভিযোগ নেই তাদেরকে অগ্রাধিকার হবে।’ এছাড়াও ছাত্রলীগের তৃণমূল নেতা, সাবেক সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের মতামতের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণ করবে বলে মন-ব্য করেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন।
গত মঙ্গলবার ১৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন এসব কথা বলেন। এ সময় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন রাজন, সাবেক উপ-ক্রীড়া সম্পাদক গোলাম বাকী চৌধুরী, সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক আরিফুর রহমান লিমন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাব্বির ইউনুস বাবুও উপসি’ত ছিলেন।
মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় সপ্তাহখানেক আগে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। ওইদিন একই অভিযোগে বিলুপ্ত করা হয় সংগঠনটির বাকৃবি শাখাও। আর এ দু’কমিটি বিলুপ্ত হওয়ার পরপরই শুরু হয়ে যায় নেতৃত্ব প্রত্যাশীদের জোর লবিং। এদিকে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপ থাকায় উভয় পক্ষ নিজ নিজ পছন্দের ব্যক্তিদের ছাত্রলীগের নেতৃত্বে আনার জন্য লবিং করেছে বলে বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়।
এ দুই কমিটির নেতৃত্ব নির্বাচনকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে পদ-প্রত্যাশীদের জীবন বৃত্তান- সংগ্রহ করতে ময়মনসিংহে আসেন মোবারক হোসেনের নেতৃত্বে ৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।
শহরের শিববাড়ী রোডস’ দলীয় কার্যালয়ে উৎসব আমেজে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে ময়মনসিংহ শহর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফাইজুর রাজ্জাক উষাণ, ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি সব্যসাচী সরকার, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাফিউল আদনান প্রিয়ম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ এস এম রাহাত পারভেজ রনি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রকিব, সাবেক সহ-সভাপতি তৌফিক হাসান সজিব, শহর ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মামুন আরিফ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বায়েজিদ সিদ্দিক রিজভী, আওয়ামী আইন ছাত্র পরিষদ-এর সহ-সভাতি ছানাউল হক, টিটিসি ছাত্র সংসদের জিএস আশরাফ আলী ও এজিএস আলমগীর কবীর জয়, সাবেক সহ-সভাপতি আশরাফ আল রাফি শাওনসহ জেলা ছাত্রলীগের ৫০জন নেতৃত্ব প্রত্যাশী জীবন বৃত্তান- জমা দেন।
পদ প্রত্যাশীদের একাধিক গ্রুপ থাকা সত্বেও এসব গ্রুপের বাইরে থেকে পদ প্রত্যাশী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ এস এম রাহাত পারভেজ রনি বলেন, দলের সুসময়ে দুঃসময়ে কাজ করেছি। আশা করি, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সততা, দক্ষ, যোগ্যতা ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে দক্ষ ও অভিজ্ঞদেরকেই মূল্যায়ন করবেন ।
কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক মোবারক হোসেন জানান, গত মঙ্গলবার জেলা ছাত্রলীগের সকাল থেকে বিকাল ৫ পর্যন- আর বিকেল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত বাকৃবি ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশীদের জীবন বৃত্তান্ত জমা নেওয়া হয়েছে।
তিনি আরো বলেছেন, এ কমিটি গঠনে জেলা আওয়ামী লীগের বিবাদমান দু’পক্ষের সমঝোতার বিষয়ে তিনি বলেন, ছাত্রলীগ আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন। এখানে সমঝোতা ও ভাগাভাগি প্রশ্নের কোনো সুযোগ নেই। মেধাবী ও যোগ্যতাসম্পন্ন নেতাদের নেতৃত্বে আনাই আমাদের মুল লক্ষ্য।

 

সর্বশেষ আপডেটঃ ৪:৫৮ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৬, ২০১৫