| সকাল ৮:৩৭ - মঙ্গলবার - ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

‘নাটকের দর্শক বিরক্ত’

বিনোদন ডেস্ক | ১৫ অক্টোবর ২০১৫, বৃহস্পতিবার,

মডেলিং ও নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে বেশ আলোচিত টিভি মিডিয়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সোহানা সাবা। সেসঙ্গে চলচ্চিত্রেও নিয়মিত কাজ করছেন তিনি। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয়ে আজকের ‘আলাপন’-এ কথা বলেছেন সাবা। তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন মারুফ কিবরিয়া

ঈদের পর নতুন কাজ কি করলেন?
কয়েকটি খ- নাটকে অভিনয় করেছি। আমার একটা সমস্যা আছে। তাহলো কাজ করলেও নাটকের নাম মনে রাখতে পারি না। তবে যে ক’টি কাজ হয়েছে সুন্দর হয়েছে। ভাল হয়েছে। আশা করছি দর্শকের ভাল লাগবে।
ধারাবাহিকের ব্যস্ততা কেমন যাচ্ছে?
আফসানা মিমির পরিচালনায় ‘ডলস হাউস টু : সাতটি তারার তিমির’ ধারাবাহিকে অভিনয় করছি। এই একটি মাত্র ধারাবাহিকের কাজ চলছে। আপাতত আর কোন ধারাবাহিকে অভিনয় করছি না।
অনেকদিন থেকে ধারাবাহিকে অনিয়মিত হয়ে পড়েছেন। কারণ কি?
টিভি নাটকে তো গত দুই বছর যাবৎ এভাবেই যাচ্ছে। কারণ চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। যখন সময় হাতে থাকে তখনই করি। এছাড়া ধারাবাহিকে তেমন কাজ করা হয় না। আসলে ব্যাপারটা হলো ধারাবাহিকে অভিনয় করতে হলে আমাকে সময় দিতে হয়। তাই ইচ্ছা থাকলেও খুব একটা কাজ করতে পারি না।
আপনার পছন্দের জায়গা কোনটি ? খ- না ধারাবাহিক?
অভিনয় করাটা আমার কাজ। আর সেটা যে কোন ধরনের নাটকেই হতে পারে। আমি অভিনেত্রী হিসেবে সব ধরনের নাটকেই কাজ করি। যেহেতু ধারাবাহিকে সময় বেশি দিতে হয় তাই এখানে কাজ কিছুটা কমিয়ে করি। কারণ আমাকে টিভি নাটকের পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও সময় দিতে হয়।
এখনকার নাটক নিয়ে আপনার মূল্যায়ন কি?
আসলে মূল্যায়ন করার মতো সময় বা পরিপক্কতা আমার হয়েছে কিনা জানি না। তবে এটুকু বলতে পারি, এখন ভাল নাটক নির্মাণ হচ্ছে। অনেক ভাল গল্প আসছে। কিন্তু একটা কারণে দর্শক পর্যন্ত নাটক পৌঁছানো যাচ্ছে না।
কি কারণ সেটা?
মাত্রাতিরিক্ত বিজ্ঞাপন। এর কারণে নাটকের দর্শক বিরক্ত। তারা নাটক দেখা ছেড়ে দিয়েছেন বললেই চলে। বিদেশী চ্যানেল নির্ভর হচ্ছেন তারা। অবশ্য বিজ্ঞাপন না প্রচার হলে আবার চ্যানেলও অচল হয়ে যাবে। সবদিকেই সমস্যা। আবার এই সমস্যার সমাধান আসতে পারে ভাল বাজেটের মাধ্যমে। এই সময়ের নাটকে বাজেট স্বল্পতা বড় একটি সমস্যা। তাই আমার মতে, যদি বাজেট বাড়ানো হয় তাহলে সমস্যা অনেকাংশে কমে যাবে।
চলতি বছরে কলকাতার একটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। সে অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?
‘ষড়ঋপু’ নামের এই ছবিটিই কলকাতায় আমার প্রথম কাজ। এটি জীবনের অন্য আরেক অধ্যায় বলতে পারেন। কলকাতার এ ছবিটিতে কাজ করতে গিয়ে দারুণ সব অভিজ্ঞতা হয়েছে। নির্মাতা, সহশিল্পী সর্বোপরি পুরো শুটিং ইউনিট আমাকে যথেষ্ঠ সহযোগিতা করেছেন। প্রথম দিকে একটু নার্ভাস লাগলেও পরে অনেকাংশে তা কাটিয়ে উঠেছি। আর সেটার জন্য ষড়ঋপু’র পুরো শুটিং ইউনিটের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।
‘দৌড়’ ছবির শুটিং শুরু হচ্ছে কবে?
ছবিটির কাজ শিগগিরই শুরুর কথা রয়েছে। সহশিল্পী থেকে শুরু করে আমাদের সব প্রস্তুতি নেয়া হয়ে গেছে। শুধু কাজ শুরুর অপেক্ষা। আমি ছাড়াও দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম  সেরা নায়ক শাকিব খান, নায়িকা অপু বিশ্বাস ও কলকাতার নায়ক ইন্দ্রনীল ছবিটিতে অভিনয় করবেন।
দীর্ঘদিন ধরেই মিডিয়াতে আছেন। অভিজ্ঞতার কথা বলুন..
অনেকটা সময়জুড়ে মিডিয়ার সঙ্গে আছি। এর মাঝে নিজেকে একটু একটু করে প্রস্তুত করেছি। অভিনয় করেছি, তার পাশাপাশি শিখেছিও। এখনও শিখে যাচ্ছি। বিশেষ করে আমার পথচলায় সিনিয়র শিল্পী-নির্মাতারা ব্যাপক অবদান রেখেছেন। পাশাপাশি আমার স্বামী মুরাদ পারভেজের কথা না বললেই নয়। চলার পথে তার অনুপ্রেরণা আমাকে পথ এগুতে অনেক সাহায্য করেছে। সে সঙ্গে দর্শকের কথাও বলতে চাই। যাদের ভালবাসায় আজ এ পর্যন্ত আসতে পেরেছি। আসলে দর্শকরাই একজন শিল্পীর প্রাণশক্তি ।
ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?
এখনই ভবিষ্যত নিয়ে ভাবতে চাই না। অভিনয়ের সঙ্গেই থাকতে চাই। চলচ্চিত্র আর নাটক দুই মাধ্যমেই দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে যেতে চেষ্টা করবো। ভাল কিছু কাজের মাধ্যমে দর্শকের হৃদয়ে অবস্থান করতে চাই।
পারিবারিক জীবন কেমন কাটছে?
খুব ভাল। স্বামী-সন্তান সহ আল্লাহর রহমতে সুখেই আছি। আর আমার ছেলে স্বরবর্ণের এক বছর হতে যাচ্ছে আগামীকাল। সবাই ওর জন্য দোয়া করবেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৮:৪৬ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৫, ২০১৫