| রাত ১:৫০ - সোমবার - ৮ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ - ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ - ৯ই মহর্‌রম, ১৪৪৪ হিজরি

শ্রীবরদীতে আওয়ামীলীগ অফিসে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সাংবাদিক সম্মেলন

শ্রীবরদী প্রতিনিধি,১ অক্টোবর ২০১৫, বৃহস্পতিবার: শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার সিংগাবরুনা ইউনিয়ন আ’লীগ কার্যালয়ে নগ্ন সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শ্রীবরদী প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন সিংগাবরুনা ইউনিয়ন আ’লীগ। গত বুধবার রাতে স’ানীয় ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি ইয়ানুছ আলীর ছেলে আলমাছ ওরফে বাদুর মদ খেয়ে কর্ণঝোড়া বাজারে আ’লীগের সভাপতি রুহুল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসান হেবুলকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এমন সময় খালিদ হাসান হেবুল তাকে নিষেধ করলে সে আরও উত্তেজিত হয় এবং তার ক্যাডার বাহিনী নিয়ে ইউনিয়ন আ’লীগ দলীয় কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুর করে। এতে দুইজন গুরুতর আহত হয়ে পাশ্ববর্তী বকশীগঞ্জ উপজেলা স্বাস’্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসারত রয়েছে। এছাড়া আরও ৩/৪ জন আহত হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে সিংগাবরুনা ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসান হেবুল লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমরা কিছুদিন আগে মদ, জুয়া, সামাজিক অনাচার, অত্যাচার ও চোরাকারবারি প্রতিরোধ কল্পে দলীয় সিদ্ধান- গ্রহণ করি। এর পর থেকেই চোরাকারবারী চক্র আমাদের বিরুদ্ধে অবস’ান নেয় এবং ২৪ সেপ্টেম্বর রাতে সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিনের ঈদ শুভেচ্ছা বিল বোর্ডে গোবর দিয়ে লেপে দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার রাতে মাদক ব্যবসায়ীর হোতা , বন ও মাদক মামলার আসামী আলমাছ ওরফে বাদুর মদ খেয়ে মাতাল হয়ে কর্নঝোড়া বাজারে আ’লীগের দলীয় অফিসে হামলা চালায় এবং আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকে। এসময় আমি গালাগালি করতে নিষেধ করলে সে আরও উত্তেজিত হয়ে আমার উপর চড়াও হয়। পরে ঘটনাটি ছড়িয়ে পরলে তার ভাই আজির, ইব্রাহিম, বাজার পাহারাদার নজরুল, মুজিবুর এবং তার ছেলে দিপু মিয়াসহ ৪০/৪৫ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অস্ত্র রাম দা, কিরিচ, লাঠিসোঠা নিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায় ও দলীয় অফিস ভাংচুর করে। এর আগেও এ সন্ত্রাসীর দল সিংগাবরুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু রায়হান বাবুলকে কর্ণঝোড়া বাজারে তু্‌চ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে লাঞ্চিত করে। এছাড়াও বন বিভাগের ডুমুরতলা ফরেষ্ট কর্মকর্তা মোস-াফিজুরের উপর হামলা চালায়। বাদুরের ছোট ভাই ইব্রাহিম মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রজন্ম কমান্ডের সিংগাবরুনা ইউনিয়ন শাখার সদস্য সচিব হওয়ায় সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে তারা মানুষকে হয়রানী, নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে। সাংবাদিক সম্মেলনে ইউনিয়ণ আ’লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন বলেন, সন্ত্রাসী হামলা ও অফিস ভাংচুরের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি অবিলম্বে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস’া গ্রহণের জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ জানান। এসময় সাংবাদিকদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন, প্রেস ক্লাব সভাপতি ও মোহনা টিভির জেলা প্রতিনিধি রেজাউল করিম বকুল, সাধারণ সম্পাদক ও মাই টিভি’র জেলা প্রতিনিধি তারেক মুহম্মদ আব্দুল্লাহ রানা, নয়া দিগন- প্রতিনিধি এজেএম আহছানুজ্জামান ফিরোজ, যায়যায়দিন প্রতিনিধি রমেশ সরকার, দৈনিক জনতা প্রতিনিধি গোলাম মোস-ফা ও বাংলাদেশ সময় প্রতিনিধি আব্দুল বাতেন প্রমুখ।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৭:২০ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ০২, ২০১৫