| বিকাল ৩:৫৭ - সোমবার - ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ - ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ - ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

বৃহস্পতি ও শনিবার কর্মবিরতি পালন করবেন প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকরা

 অনলাইন ডেস্ক,  ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫, বুধবার,
স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের অবস্থান প্রধান শিক্ষকের এক ধাপ নিচের স্তরে রাখার দাবিতে বৃহস্পতিবার ও শনিবার কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। দাবি আদায়ে তারা বৃহস্পতিবার অর্ধদিবস ও শনিবার পূর্ণদিবস কর্মসূচি পালন করবে। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কর্মসূচির ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ঐক্যজোট। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দাবি না মানলে আসন্ন প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বর্জন এবং ১৫ই অক্টোবর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতীকী অনশনসহ আরও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। শিক্ষকরা বলেন, ১৯৭৩ সালে প্রধান ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন একই থাকলেও ১৯৭৭ সালে ২৫ টাকা ব্যবধান ছিল। কিন্তু ২০১৫ সালে দুই হাজার ৩০০ টাকার ব্যবধান করা হয়। এখন প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে বেতনবৈষম্য ৯৩ শতাংশ। এই চরম অবহেলা আমরা চাই না। বৈষম্য কমিয়ে সুষম করা হোক। সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষকরা জানান, ২০১৪ সালের ১৭ই জানুয়ারি থেকে পাঁচ দফা দাবিতে আন্দোলন চলছে। দাবিগুলো হচ্ছে- প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে বৈষম্য হ্রাস। অর্থাৎ অষ্টম বেতন কাঠামো অনুযায়ী সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষকের এক ধাপ নিচে ১২তম গ্রেডে রাখা। সরাসরি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ করে সহকারী শিক্ষক পদকে এন্ট্রি পদ বিবেচনা ও পদোন্নতি দেয়া, গত বছরে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের বেতনবৈষম্য হ্রাসে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্বাস বাস্তবায়ন, সহকারী শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন স্কেল ও প্রাথমিক ডিপার্টমেন্টকে নন-ভ্যাকেশনাল ডিপার্টমেন্ট ঘোষণা করা। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ঐক্যজোটের বিভিন্ন স্তরের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ৬:০০ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৫